আশঙ্কার মাঝেই আশার আলো। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্য়ে ৪৬টি করোনা সন্দেহের মধ্য়ে পাওয়া গেল না একটিও পজিটিভ কেস। যা উদ্বেগের মধ্যেও রাজ্যবাসীর কাছে কিছুটা স্বস্তির খবর।

সূত্রের খবর, ইতিমধ্য়েই করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে ১৭৬ জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। যার মধ্যে কেবল ৯জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।  মৃত্যু হয়েছে দমদমরে এক বাসিন্দার। এমনকী প্রথমে তাঁর স্ত্রীও করোনা আক্রান্ত হতে পারে বলে সন্দেহ করা হয়েছিল। কিন্তু দুবার পরীক্ষায়  তাঁর রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

জানা গিয়েছে, সোমবার ৪৬ জনের লালারসের নমুনা পাঠানো হয় বেলেঘাটার নাইসেডে। এই ৪৬ জনের মধ্যে ছিলেন দমদমে করোনায় মৃতের পরিবারের দুই জন। যা নিয়ে খোদ আতঙ্কে ছিল স্বাস্থ্য় দফতরের কর্তারা। যদিও শেষপর্যন্ত  দেখা যায়, তাদেরও শরীরেও নেই করোনা ভাইরাস।

রাজ্য়ে করোনা ভাইরাস রোগীর পরিসংখ্য়ান বলছে, রবিবার পর্যন্ত রাজ্য়ে  আক্রান্তের সংখ্যা ছিল সাত। যার মধ্য়ে বালিগঞ্জের ছেলের দায়িত্বজ্ঞানহীনতার ফল ভুগতে হচ্ছে বাবা-মা ও পরিচারিকাকে।  সোমবার রাতে নতুন করে দুজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে। এদের মধ্যে একজন মিশর থেকে ফিরেছেন। অন্যজন ৫৫ বছরের মহিলা, ব্রিটেন থেকে ফিরেছেন। নতুন করে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ১৮জন সন্দেহভাজনকে। এই নিয়ে রাজ্যে মোট ২১৬জনকে আইসোলশেনে নেওয়া হয়েছে।

এদিন দমদমে মৃতের সহকর্মীর দেহেও করোনার ভাইরাস পাওয়া  যায়নি। কদিন আগেই প্রবল শ্বাসকষ্ট নিয়ে এনআরএস হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ওই ব্য়ক্তি। ফেয়ারলি প্লেসে  রেলের দফতরে করোনা আক্রান্তের সহকর্মী ছিলেন ওই ব্যক্তি।