কেউ বেড়াতে গিয়েছেন, তো কাউকে আবার চিকিৎসার প্রয়োজনে যেতে হয়েছে ভিনরাজ্যে। লকডাউনের কারণে দেশের প্রান্তে বিভিন্ন আটকে পড়েছেন এ রাজ্যের বহু মানুষ। এবার সেই তালিকা নাম উঠল এক তৃণমূল কাউন্সিলরেরও। বেঙ্গালুরু থেকে ভিডিও বার্তায় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করার আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: লকডাউনের গেরোয় বাঙালি পর্যটকরা, বন্দিদশায় দিন কাটছে উত্তর ভারতে

রায়গঞ্জ পুরসভার ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর প্রসেনজিৎ সরকার। চিকিৎসা করানোর জন্য এক আত্মীয়কে নিয়ে গত ১৬ মার্চ বেঙ্গালুরুতে যান তিনি। সেখানকার এক হাসপাতালে যখন রোগীর চিকিৎসা চলছে, তখন করোনা আতঙ্কে দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। হোটেল থেকে ভিডিও মারফৎ তৃণমল কাউন্সিলর জানিয়েছেন, 'সঙ্গে যা টাকা ছিল, তা শেষ হয়ে দিয়েছে। এটিএম খোলা থাকলেও টাকা তুলতে পারছেন না। পুলিশ তাঁদের হোটেলের বাইরে বেরোতেও দিচ্ছে না।' এতটাই আর্থিক সংকটে পড়েছেন যে, এখন কার্যত আধপেটা খেয়ে থাকতে হচ্ছে প্রসেনজিৎ ও তাঁর সঙ্গীদের। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে তাঁর দলের কাউন্সিলের কাতর আবেদন, 'যেভাবেই হোক আমাদের বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করুন।'

আরও পড়ুন: লকডাউনে বিপত্তি, ভিন রাজ্যে চিকিৎসা করাতে গিয়ে আটকে বীরভূমের বহু মানুষ

এদিকে কাউন্সিলরের দুরবস্থার কথা জানতে পেরে নড়েচড়ে বসেছে রায়গঞ্জ পুরসভার আধিকারিকরাও। জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে বলে জানা গিয়েছে। কবে রায়গঞ্জে ফিরবেন তৃণমূল কাউন্সিলর প্রসেনজিৎ সরকার? উদ্বেগ বাড়ছে পরিবারের।