Asianet News Bangla

মাত্র ১৫ মিনিটেই করোনা-রিপোর্ট, কিট আবিষ্কার বলে দাবি বাংলাদেশের বিজ্ঞানীদের

  • করোনা-কিট মাত্র ২৫০ টাকায় 
  • ১৫ মিনিটের মধ্যেই হবে পরীক্ষা
  • দাবি বাংলাদেশের বিজ্ঞানীদের
  • কিট তৈরিতে জোর চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের 
coronavirus detect in 15 minutes, bengladeshi sciencetists develpoed testing kit
Author
Kolkata, First Published Mar 24, 2020, 7:35 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

আপনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কি? তা পরীক্ষা করে দেখতে সময় লাগবে মাত্র ১৫ মিনিট।  সেই ধরনেরই মেডিক্যাল কিট তাঁরা আবিষ্কার করেছেন। দাবি করছেন বাংলাদেশের এক দল বিজ্ঞানীর। আর এই কিট তৈরিতে ভারতীয় টাকায় খরচ হবে ২২৮ টাকা ৮৩ পয়সা। অর্থাৎ ২৫০ টাকা খরচ করতে আর ১৫ মিনিটের মধ্যেই আপনি জানতে পারবেন চরম ছোঁয়াচে এই জীবানু আপনার দেহে রয়েছে কিনা। বাংলাদেশের চট্টগ্রাম, ঢাকাসহ বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাগারে এই কিট নিয়ে আরও পরীক্ষা নিরীক্ষা শুরু হয়েগেছে বলেই সূত্রের খবর।

আরও পড়ুনঃ করোনাভাইরাস ও লক ডাউনকে হাতিয়ার করেই খালি হল শাহিনবাগ, ১০১ দিন পর উঠল অবস্থান.

আরও পড়ুনঃ করোনা আতঙ্ক কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই চিনে হানা হান্টা ভাইরাসের, মৃত ১

বাংলাদেশের বিজ্ঞানীরা করোনাভাইরাস পরীক্ষার যে কিট তৈরি করেছেন ঠিক সেই ধরনের কিটই চিনের হুবেই প্রদেশে প্রথম তৈরি হয়েছিল। হুবেই প্রদেশে করোনা ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছিল। প্রায় মড়ক লেগেগিয়েছি। অস্ট্রেলিয়াও এই ধরনের কিট আমদানী করতে ইতিমধ্যেই চিনকে বরাত দিয়েছে বলেও সেই দেশের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে।

অবিলম্বে এই কিটের গণ উৎপাদনের ওপর জোর দিয়েছে চিকিৎসা বিজ্ঞানের সঙ্গ যুক্ত সংস্থাগুলি। জারি করা হয়েছে সবুজ সংকেতও। বর্তমান বিশ্বে এই ধরনের কিটে চাহিদা প্রবল। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে তাই অবিলম্বে এই কিট তৈরি করে বাজারে ছাড়া হোক। বাংলাদেশে এখনও পর্যন্ত তেমন প্রভাব ফেলেনি করোনাভাইরাস। আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯। তবে ইতিমধ্যেই মৃত্যু হয়েছে ৪জনের। তবে  এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে পেরেথেন ৫ জন। তবে আক্রান্তের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করছে প্রাশাসন। ইতিমধ্যে বিশেষ সতর্কতা নেওয়া হয়েছে। তবে একটি রিপোর্ট বলছে বাংলাদেশে ১৮০ মিলিয়ন নাগরিকের জন্য করোনা নির্ণয়ের মেডিক্যাল কিট রয়েছে মাত্র ১,৭৩২টি। যা যথেষ্টই উদ্বেগজনক। তবে ইতিমধ্যে দেশের হাসপাতালগুলিকে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু করা হয়েছে। তৈরি রয়েছে ২৯ ইনসেনটিভ কেয়ার ইউনিট। রাজসাহীসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় সরকারি হাসপাতালেই আইসোশলেসন ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios