লকডাইনের দ্বিতীয় দিনেও তেমন আশাপ্রদ নয় ছবিটা। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে । কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া হিসেব অনুযায়ী বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৬৪৯। নতুন করে মৃত্যু হয়েছে আরো ৪ জনের। সবমিলিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা ১৬। দেশের ১৭টি প্রদেশে করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেছে।  যা নিয়ে এদিন রীতিমত উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। 

 

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থাকে জানান হয়েছে গত চার দিনে ৭০-৮০ জন করে আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। বুধবারও আক্রান্ত হয়েছিলেন ৭৩ জন। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা কমে হয়েছে ৪২। সংখ্যা কমলেও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক বিষয়টিকে হাল্কা ভাবে নিতে রাজি নন। পরিস্থিতি নিয়ে এখনও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সরকার। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে সবরকম ইতিবাচক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থেকে। 

তবে বৃহস্পতিবারও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের তরফ থেকে জানান হয়েছে কেন্দ্রের নির্দেশ মেনে লকডাউনে থাকা এখনও জরুরী। করোনার সংক্রমণ রুখতে রীতিমত জরুরী সমাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। তাই লকডাউন জারি হওয়ার পর বাড়ি থাকারই শ্রেয়। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তৎপ থেকে জানান হয়েছে লকডাউন পরিস্থিতিতে যাতে নিত্যপ্রয়োজনী জিনিসের সরবরাহ বাধাপ্রাপ্ত না হয় সেদিকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। 

কেন্দ্রের জারি করা লকডাউন কার্যকর করতে রীতিমত তৎপর রাজ্য প্রশাসন। সবকটি রাজ্য কড়া হাতে মোকাবিলা করছে লকডাউনে পথে নামা মানুষদের।কলকাতায়  আইন অমান্য করে পথে নামায় গ্রেফতার করা হয়েছে  প্রায় ৪৫৩ জনকে। করোনার সংক্রমণ রুখতে গত মঙ্গলবারই  লকডাউনের কথা ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।