করোনা টিকা বা কোভিড ভ্যাকসিন নিয়ে সেরাম ইনস্টিটিউটের পক্ষ তেকে একমাত্র কথা বলবেন সংস্থার প্রধান আদার পুনাওয়ালে। সংস্থার নির্বাহী পরিচালক সুরেশ যাবদ টিকা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনার করার পর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ভারত তথা বিশ্বের সবথেকে বড় টিকা প্রস্তুককারক সংস্থাটি। সংস্থার পক্ষ থেকে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সুরেশ যাবদের মতামত সংস্থার মতমত নয়। সেটি একান্তই তাঁর ব্যক্তিগত মতামত। 

কোভিড টিকা নিয়ে সাফাই কেন্দ্রের,২১ কোটিরও বেশি করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে রাজ্যে ...

সুরেশ যাবদ, পুনের সেরাম ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক। তিনি সরকারে টিকা কর্মসূচির সমালোচনা করেছিলেন। একটি ভার্চুয়াল স্বাস্থ্য সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে  তিনি শুধু বলেছিলেন, কতটা টিকার মজুত রয়েছে সে সম্পর্কে কোনও কিছু না জেনেই কেন্দ্রীয় সরকার টিকা প্রকল্প চালু করে দিয়েছিল। সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকাও পুরোপুরি মানছে না বলেও অভিযোগ করেছেন। যাদবের মূল কথাই ছিল, পর্যাপ্ত পরিমাণে টিকা মজুত নেই জেনেও সরকার টিকা অভিযান শুরু করেছে। প্রাথমিকভাবে ঠিক করা হয়েছিল ৩০০ মিলিয়ন মানুষকে টিকা দেওয়া হবে। সেই জন্য সংস্থাটি ৬০০ মিলিয়ন করোনাটিকার ডোজ তৈরি করেছিল। কিন্তু সেই লক্ষ্যে পৌঁছানোর আগেই সরকার আরও একধাপ এগিয়ে ৪৫ বছরের বেশি বয়স্কদের টিকা দেওয়ার কাজ শুরু করেদিয়েছিল। তারপরই  তড়িঘড়ি শুরু হয়ে যায় ১৮ উর্ধ্বোদের টাকা কর্মসূচি। টিকার সহজলভ্যতা বিবেচনা না করেই টিকা কর্মসূচি চালু করা হয়েছিল বলেও অভিযোগ করেছিলেন তিনি। 

Cyclone Yaas: 'যশ'মোকাবিলায় নির্দেশ নরেন্দ্র মোদীর, তৈরি NDRF-র ৪৬টি দল ...

সেরামের বক্তব্য
সেরাম আধিকারিকের এই বক্তব্য সামনে আসার পরই কিছুটা অস্বস্তিতে পড়েছে যায় টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থাটি। তারপরই সংস্থার পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় সুরেশ যাদাব যা বলেছেন তা সংস্থার দৃষ্টিভঙ্গি নয়। সংস্থার পক্ষ থেকে একমাত্র আদার পুনাওয়ালাই সমস্ত কিছু বলছেন। একই সঙ্গে বলা হয়েছে সুরেশ যাদব যা বলেছেন তা নিয়ে সংস্থার পক্ষ থেকে কোনও বিবৃতি জারি করা হয়নি। পুনের সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া কোভিশিল্ডের উৎপাদন বাড়ানোর জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করতে সংস্থাটি কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলছে বলেও জানান হয়েছে। একই সঙ্গে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে আদার পুনাওয়ালাও এই সংস্থার একমাত্র সরকারি মুখপাত্র। সংস্থার পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, যখন আক্রান্তের দৈনিক পরিসংখ্যন কম ছিল তখনই সেরাম কর্তা ভ্যাকসিনের রফতানি বন্ধ করতে উদ্যোগ নিয়েছিলেন।

জুনে ৪৫ লক্ষ পরীক্ষার টার্গেট ICMRর, করোনা মোকাবিলায় নমুনা পরীক্ষাতেই জোর ...

অন্যদিকে GAVI আশাবাদী যে সেরাম আর তিন মাসের মধ্যেই ভ্যাকসিন সরবরাহ পুনরায় শুরু করতে পারবে। তবে সেমার সম্প্রতি কয়েকটি বিষয়ে বিতর্কের মুখে পড়েছে। সেরামের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তারা কেন্দ্রীয় সরকারকে করোনা টিকা ডোজ প্রতি ১৫০ রাজ্যগুলিকে ডোজ প্রতি ২৫০ টাকায় বিক্রি করবে। আর বেসরকারি হাসপাতালে করোনা টিকার দাম হবে ৬০০ টাকা। অনেক রাজ্যেরই বক্তব্য কেন কেন্দ্র ও রাজ্যের জন্য পৃথক দাম নির্ধারণ করা হবে।