আইসিসি বিশ্বকাপের পিচে প্রথম বল পড়তে মেরে কেটে আর দিন তেরো বাকি আছে। ফলে ক্রমেই ক্রিকেট বিশ্বে উত্তেজনার আঁচ বাড়ছে। আর সেই উন্মাদনাকে আরও কয়েক গ্রাম বাড়িয়ে দিতে শুক্রবার আইসিসি ২৪ জন ধারাভাষ্যকারের এক দুর্দান্ত প্যানেল ঘোষণা করল। এঁরাই ক্রিকেট বিশ্বকাপে ধারাভাষ্যের দায়িত্বে থাকবেন।

ভারতের ত্রয়ী

ধারাভাষ্যকারদের প্যানেলে ক্রিকেট খেলায় অগ্রণী প্রায় সব দেশেরই প্রতিনিধিরাই রয়েছেন। ভারত থেকে আছেন এমন দুই প্রাক্তন ক্রিকেটার যাঁদের ক্রিকেট প্রজ্ঞা সারা বিশ্বেই বন্দিত - প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও সঞ্জয় মঞ্জরেকর। এছাড়া রয়েছেন ধারাভাষ্যকরদের বক্সেরেক পরিচিত ভারতীয় মুখ হর্ষ ভোগলে।

এবারই অভিষেক

এইবারই বিশ্বকাপে ধারাভাষ্যে অভিষেক হবে প্রাক্তন দুই ক্রিকেটার অস্ট্রেলিয় মাইকেল ক্লার্ক ও শ্রীলঙ্কান কুমার সাঙ্গাকারা-র। প্রথমজন ২০১৫ অর্থাত গতবারের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। অপরজন গত বিশ্বকাপের পর চারটি ম্যাচে শতরান করে রেকর্ড করেছিলেন।

মহিলা দুইজন

সৌরভ, ক্লার্ক, সাঙ্গাকারা ছাড়াও দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন অধিনায়ক গ্রেম স্মিথ, ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপজয়ী পাক কিংবদন্তি ওয়াসিম আক্রম, প্রাক্তন ইংরেজ অধিনায়ক নাসের হুসেনদের মতো প্রখ্য়াত প্রাক্তন ক্রিকেটাররা থাকছেন ধারাভাষ্যকার বক্সে। মহিলা ধারাভাষ্যকার থাকছেন দুইজন - প্রাক্তন ইংরেজ মহিলা ক্রিকেটার ইশা গুহ ও প্রাক্তন অজি মহিলা ক্রিকেটার মেলানিয়া জোন্স।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯-এর ধারাভাষ্যকারদের সম্পূর্ণ প্যানেল -

নাসির হুসেন, ইয়ান বিশপ, সৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায়, মেলানিয়া জোন্স, কুমার সাঙ্গাকারা, মাইকেল আথার্টন, অ্যালিসন মিচেল, ব্রেন্ডন ম্যাকালাম, গ্রেম স্মিথ, ওয়াসিম আক্রম, শন পোলক, মাইকেল স্লেটার, মার্ক নিকোলাস, মাইকেল হোল্ডিং, ইশা গুহ, পোমি এমবাংওয়া, সঞ্জয় মঞ্জরেকর, হর্ষ ভোগলে, সাইমন ডুল, ইয়ান স্মিথ, রামিজ রাজা, আতাহার আলি খান এবং ইয়ান ওয়ার্ড।

কী বলছেন ধারাভাষ্যকাররা

বিশ্বকাপের এলিট ধারাভাষ্যকারদের প্যানেল ঘোষণার পরই তাঁদের উত্তেজনা ধরে রাখতে পারেননি প্যানেলের বেশ কয়েকজন সদস্য। জেনে নেওয়া যাক কে কি বললেন -

নাসির হুসেন - প্রাক্তন ইংরেজ ক্রিকেটার জানিয়েছেন ইংল্যান্ড আর ওয়েলস আপাতত অত্যন্ত উত্তেজক একটা ক্রিকেট গ্রীষ্মের প্রত্যাশায় বিভোর। এই বিশ্বকাপেরই এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে আকর্ষণীয় হয়ে ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি মনে করেন। আর সেই ইতিহাসের একটা অংশ হয়ে ওঠার জন্য তাঁর আর তর সইছে না।

ওয়াসিম আক্রম - আক্রমও মনে করছেন খুবই আকর্ষণীয় হতে চলেছে আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপ। ১৯৯২ সালে যেইবার আক্রম বিশ্বকাপ জিতেছিলেন সেইবারের টুর্নামেন্টের ফর্ম্যাটেই এবার খেলা হবে। আর এই ফর্ম্যাটটাই আদর্শ বলে মনে করেন সুইং-এর সুলতান। এই ফর্ম্যাটই টুর্নামেন্টকে অত্যন্ত প্রতিযোগিতামূলক করে তুলবে, বলে তাঁর বিশ্বাস।

কুমার সাঙ্গাকারা - একই কথা বলছেন এইবারই প্রথম বিশ্বকাপে দারাবাষ্য় দিতে যাওয়া কুমার সাঙ্গাকারাও। সামনের সময়টা দারুণ কাটবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।  

ইয়ান বিশপ - প্রাক্তন ক্যারিবিয়ান জোরে বোলার জানিয়েছেন, এইরকম তারকাখচিত ধারাভাষ্যকার প্যানেলের সদস্য হওয়াটাই সম্মানের।