নির্বাসন কাটিয়ে ফেরার পর তাঁকে আর দলে রাখেনি চেন্নাই সুপার কিংস। নিজের শহর ছেড়ে ভারতীয় অফ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন চলে আসেন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবে। তবে শুধু আসাই নয়, টিম ইন্ডিয়ার 'অ্যাশ'কে অধিনায়ক পদেও বসায় প্রীতির দল। কিন্তু তাতে অবশ্য কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের ভাগ্য বদলায়নি। ২০১৮তে সাত ও ২০১৯ আইপিএল মরসুমে ছয় নম্বরে শেষ করে তারা। দু'বছর অশ্বিনকে অধিনায়ক রাখার পর প্রীতির দল এবার তাঁকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এই খবর পেতেই অশ্বিনকে দলে তুলে নিতে ঝাঁপায় দিল্লি ক্যাপিটালস। অশ্বিনের দিকে হাত বাড়িয়েছিল সান রাইজার্স হায়দরাবাদও। কিন্তু শেষ হাসি হাসল রাজধানীর দল। এদিকে অশ্বিনকে দল থেকে ছেঁটে কেএল রাহুলকে নতুন অধিনায়ক করতে চাইছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। 

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব বা দিল্লি ক্যাপিটালস দলের পক্ষে থেকে এখনও কোনও অফিসিয়াল ঘোষণা না হলেও, কিছুদিন আগেই দিল্লি ক্যাপিটালসের ক্রিকেট অ্যাডভাইজার সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন, দিল্লি ক্যাপিটালস অশ্বিনকে দলে চায়। সৌরভ বলেছিলেন অশ্বিনের মত অভিজ্ঞ স্পিনার দলে এলে সেটা অবশ্যই ভাল। 

২০১৮ আইপিএলের আগে অশ্বিনকে ৭.৬ কোটি টাকা দিয়ে দলে নিয়েছিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। তবে দু'বছর পর ভারতীয় অফ স্পিনারকে ছেঁটে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রীতির দল। আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী দিল্লিকে বিনিময় প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অশ্বিনকে দলে নিতে হত। কিন্তু কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব  অশ্বিনকে ছেড়ে দিচ্ছে, তাই সরাসরি আর্থিক অঙ্কের বিনিময়ে ভারতীয় অফ স্পিনারকে দলে নিতে পারবে দিল্লি ক্যাপিটালস। কিংস শিবিরের এক ডিরেক্টরের সই হয়ে গেলেই অশ্বিনের পাঞ্জাব থেকে দিল্লি যাওয়া পাকা। শ্রেয়স আইয়ারদের দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ঘরের মাঠে যে ধরনের উইকেট তারা খেলেন, সেখানে অশ্বিনের মত একজন স্পিনার তাঁদের প্রয়োজন। তবে চমকের এখানেই শেষ নয়, আগামী মরসুমের জন্য আরও এক ভারতীয় ক্রিকেটারের দিকে হাত বাড়িয়েছে দিল্লি। রাজস্থান থেকে অজিঙ্কে রাহানেকেও দিল্লিতে নিয়ে আসার ভাবনায় রয়েছেন সৌরভরা। কথা চলছে সেটা নিয়েও।