বিশ্বকাপ ফাইনাল ম্যাচ। খেতাব জিততে মরিয়া ছিল দু' দলই। টানটটান উত্তেজনার ম্যাচে উদীয়মান ক্রিকেটাররা যেভাবে বার বার গালিগালাজ এমন কী খেলার শেষে ধাক্কাধাক্কিতেওে জড়িয়ে পড়ল, তা ক্রিকেট-এর পক্ষে মোটেই ভাল বিজ্ঞাপন নয়। 

অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে প্রথমবার খেতাব জিতেছে বাংলাদেশ। স্বভাবতই বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের উচ্ছাসটা ছিল একটু বেশি। কিন্তু উত্তেজনার বশবর্তী হয়ে যেভাবে প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত আগ্রাসী হয়ে উঠেছিল তারা, তা নিঃসন্দেহে নিন্দনীয়। তবে ভারতের ছোটরাও অবশ্য কম যায়নি। 

রবিবার ফাইনালে দুরন্ত বোলিং করে নজর কাড়ে বাংলাদেশের শরিফুল ইসলাম। বাঁ হাতি এই পেসার অবশ্য শুরু থেকেই ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের গালিগালাজ করতে থাকে। প্রায় প্রতিটি ডেলিভারির পরেই ব্যাটসম্যান-এর দিকে তেড়ে গিয়ে কিছু না কিছু বলতে শোনা যায় শরিফুলকে। খেলায় বাংলাদেশ যত ভারতের উপর চেপে বসেছে, ততই বেড়েছে স্লেজিং-এর বহর। 

আরও পড়ুন- ভারতকে হারিয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন, ইতিহাস সৃষ্টি করল বাংলাদেশের ছোটরা

আবার বাংলাদেশ যখন ব্যাট করতে নামে, তখন পাল্টা তাদের ব্যাটসম্যানদের ঘিরে ধরে স্লেজিং শুরু করে ভারতীয় ক্রিকেটাররা। কখনও পেসার আকাশ সিং, আবার কখনও স্পিনার রবি বিষ্ণোই, বোলিংয়ের পর তেড়ে গিয়ে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের প্ররোচিত করতে থাকে তারা। এমন কী, টুর্নামেন্ট-এর সেরা যশস্বী জয়সওয়ালকেও স্লেজিং-এর জন্য একবার সতর্ক করতে হয় আম্পায়ারকে। 

কিন্তু খেলার শেষে পরিস্থিতি প্রায় হাতের বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছিল। বাংলাদেশ জয়ের রান তুলে ফেলতেই অত্যন্ত আক্রমণাত্মকভাবে মাঠে নেমে আসে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। খেলা চলকালীন এবং শেষ হওয়ার পরেও তাদের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে অশালীন শব্দ প্রয়োগ করতে শোনা যায়। এক বাংলাদেশি ক্রিকেটার এমন গালাগাল করে যে মেজাজ হারিয়ে এক ভারতীয় ক্রিকেটার তাকে গিয়ে ধাক্কাও মেরে বসে। কোনওক্রমে দলের ক্রিকেটারদের শান্ত করে কোচ পরশ মামরে। 

 

 

খেলা চলাকালীন এবং শেষে যা হয়েছে তার জন্য অবশ্য দুঃখপ্রকাশ করে বাংলাদেশের অধিনায়ক আকবর আলি। সাংবাদিক সম্মেলনে এসে আলি স্বীকার করে নেয়, 'আমাদের কয়েকজন বোলার আবেগপ্রবণ হয়ে গিয়ে একটু বেশি উত্তেজিত হয়ে গিয়েছিল। খেলার পরে যা হয়েছে তা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। আমি ভারতকে অভিনন্দন জানাতে চাই।' অধিনায়ক আলির ধৈর্যশীল ব্যাটিংয়েই শেষ পর্যন্ত জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছয় বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ের মতোই মাঠের বাইরেও পরিণীতি বোধ দেখাল এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। 

মাঠের মধ্যে বাংলাদেশের ত্রিকেটারদের এই আচরণ ভালভাবে নেননি ভারতীয় সমর্থক এবং ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরাও। যদিও, প্রত্যেকেই ম্যাচে বাংলাদেশের দুরন্ত পারফরম্যান্স-এর প্রশংসা করেছেন।