নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে হারতে হয়েছে ভারতকে। ব্যাটসম্যানরা অসাধারণ পারফরম্যান্স করলেও বোলারদের অবস্থা ছিল হতাশাজনক। পেসার থেকে শুরু করে স্পিনার সুবিধা করতে পারেননি কেউই। তাই এবার বোলিং অর্ডারে কিছু রদবদল চাইছেন হরভজন। 

প্রথম ম্যাচে ভারতীয় বোলারদের কচুকাটা করে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা ৩৪৮ রানের বিশাল টার্গেট তারা একরকম হেসেখেলেই তাড়া করে জিতেছে। শতরান করেছিলেন নিউজিল্যান্ডের তারকা মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। তিন ম্যাচের সিরিজে আপাতত এগিয়ে আত্মবিশ্বাসী কিউয়িরা। 

প্রথম ম্যাচে খেলেননি চাহাল। কুলদীপ যাদব এর সঙ্গে আর এক স্পিনার হিসাবে বল করেন অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা। দুজনের কেউই নিউজিল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের কোনোরকম সমস্যায় ফেলতে পারেননি। কুলদীপ ২ টি উইকেট পেয়েছিলেন। কিন্তু তার বদলে তিনি খরচ করেছিলেন ৮৪ রান। স্পিনের বিরুদ্ধেও স্বচ্ছন্দে ব্যাটিং করেছেন নিউজিল্যান্ড। যার ফলে চিন্তায় কপালে ভাঁজ পড়েছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের। 

চাহাল কুলদীপ কে একসঙ্গে খেলানোর পেছনে নিজের যুক্তিও পেশ করেছেন হরভজন। তার মতে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা পেস বোলিংয়ের বিরুদ্ধে বরাবরই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে থাকেন। ফলে ওই জায়গায় পরিবর্তন করলেও তেমন কোনো ফায়দা হবে না। বরং যদি চাহাল, কুলদীপ দুজনকে একসাথে খেলানো যায় তবে মাঝের ওভারে উইকেট আসতে পারে। আগের ম্যাচে মাঝের ওভারগুলিতে দুটি বড় পার্টনারশিপ হয় নিউজিল্যান্ডের। ওই দুটি পার্টনারশিপ চলাকালীন তাদের ব্যাটিংয়ে কোনো প্রভাব ফেলতে পারেননি ভারতীয় বোলাররা। কিন্তু যদি দুজন রিস্ট স্পিনার দলে থাকে তবে উইকেট সামলে তাড়াতাড়ি রান তুলতে অসুবিধা হবে নিউজিল্যান্ডের। সেই সময় তাদের চাপে ফেলে উইকেট তোলা যেতে পারে বলে মনে করছেন হরভজন। তার মতে কেদার যাদব কে বসিয়ে তার বদলে চাহাল কে খেলানো যেতে পারে। 

নিউজিল্যান্ড ট্যুরে প্রথমবারের জন্য চাপ অনুভব করছে ভারতীয় শিবির। মাত্র ৩ ম্যাচের সিরিজ হওয়ায় এখানে পিছিয়ে পরে ফিরে আসা কঠিন। এখন দেখার হরভজনের চিন্তার সাথে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের চিন্তা মেলে কিনা। নাকি আরো একবার তারা একই দল মাঠে নামান।