সিডনি টেস্টে চতুর্থ দিনের শেষেও চালকের আসনে ছিল অস্ট্রেলিয়া দল। পঞ্চম দিনের শুরুতে অজিঙ্কে রাহানের আউট হওয়ার পর হারের খাড়া ঝুলছিল ভারতীয় দলের ঘাড়ে। কিন্তু সেই সময় প্রথমে পুজারা ও পন্থ অনেকটা লড়াই দেয়। ১৪৮ রানে পার্টনারশিপ করেন দুজন। সেঞ্চুরি হাতছাড়া করলেও, ৯৭ রান করে আউট হন পন্থ। অপরদিকে ৭৭ রান করেন পুজারা। কিন্তু পুজারা আউট হওয়ার পর, ভারতীয় দলের হার সময়ের অপেক্ষা বলে মনে করছিলেন অনেকেই। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেটের দ্য ওয়াল রাহুল দ্রাবিড়ের জন্মদিনে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ডিফেন্সের বীরগাঁথা লিখলেন হনুমা বিহারী ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

সেই সময় ভারতীয় দলের ইনিংসের রাশ ধরেন হনুমা বিহারী ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ম্যাচ জয়ের কোনও আশা না থাকলেও, ম্য়াচ বাঁচচানোর জন্য লড়াই শুরু করে হনুমা-অশ্বিন জুটি। সেশনের ওভারের পর ওভার, ঘণ্টার পর ঘণ্টা, সেশনের পর সেশন ব্যাট করেন দুজন। মাথা ঠান্ডা করে ধৈর্যশীল ব্যাটিংয়ের নজির গড়েন তারা। মোট ১৩১ ওভার ব্যাট করে সিডনি টেস্ট ড্র ককরে ভারত। যা এক ঐতিহাসিক রেকর্ড। অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের যাবতীয় অস্ত্র ব্যর্থ করে তাদের মুখের সামনে থেকে জয় কেড়ে নিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও হনুমা বিহারী।

সিডনি টেস্টে ম্যাচ বাঁচাতে গিয়ে বড় রান করেননি হনুমা বিহারী ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ১৬১ বলে ২৩ রান করেন হনুমা ও ১২৮ বলে ৩৯ রান করেন অশ্বিন। বড় রান না করলেও, তাদের এই ইনিংস কোনও সেঞ্চুরির থেকে কম নয় বলেই মত ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের। কারণ রান নয়, ভারতের ম্যাচ বাঁচাতে দরকার ছিল দিনভর ক্রিজ কামড়ে পড়ে থাকা। সেই কাজটাই করেছেন হনুমা ও অশ্বিন। আজ ভারতীয় ক্রিকেটের দ্য ওয়াল রাহুল দ্রাবিড়ের জন্মদিন।নেটিজেনদের মতে দ্রাবিড়ের জন্মদিনে সেরা উপহারটা অস্ট্রেলিয়া থেকে দিলেন হনুমা ও অশ্বিন।