চেন্নাই টেস্টে প্রথম ইনিংসে ৩৩৭ রানে শেষ হল ভারতীয় দলের প্রথম ইনিংস। ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসের ৫৭৮ রানের ইনিংসের থেকে ২৪১ রান দূরে থামল বিরাট কোহলিদের প্রথম ইনিংস। যার ফলে ঘরের মাঠে ফলো অনের শিকার হলেও, ভারতকে ফের ব্যাটিংয়ে না পাঠিয়ে নিজরাই ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট। যার ফলে ২৪১ রানের পাহাড় প্রমণ লিড নিয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেছে ব্রিটিশ লায়ন্সরা। 

প্রথম ইনিংসে জো রুটের অনবদ্য় ২১৮ রানের ঐতিহাসিক ইনিংসের সৌজন্য ৫৭৮ রানের পাহার প্রমাণ স্কোর করেছিল ইংল্যান্ড দল। ৮৭ ও ৮২ রানের ইনিংস খেলে ডোম সিবলি ও বেন স্টোকস। ইংল্যান্ডের বিশাল স্কোর তাড়া করতে গিয়ে শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি ভারতীয় দলের। ওপেনার রোহিত শর্মা, শুভমান গিল থেকে শুরু করে অধিনায়ক বিরাট কোহলি, সহ অধিনায়ক অজিঙ্কে রাহানে সকলেই প্যাভেলিয়নে ফেরেন তাড়াতাড়া। এরপরভরতীয় দলের ইনিংসের রাশ ধরেন চেতেশ্বর পুজারা ও ঋষভ পন্থ। পুজার-পন্থের পার্টনারশিপের সৌজন্যে সম্মান জনক স্কোরে পৌছায় ভারতীয় দল। দুজন মিলে  ১১৯ রানের পার্টনারশিপ করেন। অর্ধশতরান পূরণ করেন দুই তারকাই। কিন্তু দলের ১৯২ রানের মাথায় দুর্ভাগ্যজনকভাবে ক্যাচ আউট হন পুজারা। ৭৩ রান করেন তিনি। অপরদিকে, ৯১ রানে আউট হন পন্থ। ফের সেঞ্চুরি হাতছাড়া করেন তিনি। ক্রিজে লড়াই করছিলেন অশ্বিন ও সুন্দর জুটি।  তৃতীয় দিনের শেষে ভারতের স্কোর ২৫৭ রানে ৬ উইকেট।

চতুর্থ দিনে ভারতীয় ইনিংসে  অশ্বিন ও সুন্দর কিছুটা লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করে। তৃতীয় ও চতুর্থ দিনের সকাল মিলিয়ে ৮০ রানের পার্টনারশিপ করেন দুজন। শেষে ৩১ রানে আউট হন অশ্বিন। তবে একদিক থেকে লড়াই চালিয়ে যান ওয়াশিংটন সুন্দর। ব্রিসবেন টেস্টের মতই চেন্নাইতে অনবদ্য ইনিংস খেলে নিজের অর্ধশতরান পুরণ করেন তিনি। অপরদিক থেকে একের পর এক উইকেট পড়ায় শেষে ৮৫ রানে নট থেকে যান ওয়াশিংটন সুন্দর। হাতছাড়া হয় টেস্টে কেরিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। ৩৩৭ রানে শেষে হয় ভারতের প্রথম ইনিংস। দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ডকে দ্রুত অল আউট করে ম্যাচে ভারতীয় দল কামব্যাক করতে পারে কিনা সেটাই দেখার।