প্রথমে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের দুরন্ত সেঞ্চুরি ও বিরাট কোহলি অনবদ্য অর্ধশতরান। তারপর বেলা শেষে ফের বল হাতে দাপট ভারতীয় স্পিনারদের। চেন্নাইয়ে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে তৃতীয় দিনের শেষে কার্যত জয়ের গন্ধ পাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৮৬ রানে শেষ হয় টিম ইন্ডিয়া ইনিংস। প্রথম ইনিংসে ১৯৫ রানের সৌজন্যে ৪৮২ রানের বিশাল টার্গেট ইংল্যান্ডকে দেয় ভারত। যার জবাবে দিনের শেষে জো রুটের দলের স্কোর ৫৩ রানে ৩ উইকেট। 

তৃতীয় দিনে ৫৪ রানে ১ উইকেট নিয়ে খেলা শুরু করে ভারতীয় দল। পরিকল্পনা ছিল চিপকের স্পিন সহায়ক পিচে অ্যাটাকিং ব্যাটিং করে ব্রিটিশ বোলারদের উপর চাপ সষ্টির পাশাপাশি দ্রুত রান তোলা হব। কিন্তু পালটা মইন আলি ও লিচের স্পিনের ভেলকিতে ফেঁসে যান একের পর এক ব্যাটসম্যান। পুজারা দুর্ভাগ্যজনকভাবে রান আউট হলেও, ক্রিজে দাঁড়াতে পারেননি রোহিত শর্মা, ঋষভ পন্থ, অজিঙ্কে রাহানে, অক্সর প্যাটেলরা। একসময় ১০৬ রানে ৬ উইকেট পড়ে গিয়েছিল ভারতীয় দলের। সেই সময় দলের রাশ ধরেন অধিনায়ক কোহলি ও অশ্বিন। দুজন মিলে ৯৬ রানের পার্টনারশিপ করেন। কোহলি ৬২ রান করে আউট হলেও, নিজের ইনিংস চালিয়ে যান অশ্বিন। কোহলি আউট হওয়ার পর প্রথমে টেলেন্ডারদের নিয়ে নিজের অর্ধশতরান পূরণ করেন ভারতীয় তারকা স্পিনার। তারপর শেষে নিজের শতরানও পূরণ করেন অশ্বিন। ১০৬ রান করে অলি স্টোনের বলে আউট হন ইশ্বিন। ভারতের দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হয় ২৮৬ রানে। 

প্রথম ইনিংসে লিড যোগ করে ভারতের দেওয়ার ৪৮২ রানের টার্গেট তাড়া করতে নামে ইংল্যান্ড। ১৭ রানে প্রথম উইকেট পড়ে রুট ব্রিগেডের। অক্সর প্যাটেলের বলে আউট হন সিবলি। এরপর জো বার্নস ও ড্যান লরেন্স কিছুটা লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করলেও শেষ রক্ষা হয়নি। দলের ৪৯ রানে অশ্বিনের আউট হন বার্নস। এরপর নাইট ওয়াচম্যাচ হিসেবে জ্যাক লিচকে নামালেও, অক্সর প্যাটেলের বলে খাতা না খুলেই আউট হন তিনি। দিনের শেষে ইংল্যান্ডের স্কোর ৫৩ রানে ৩ উইকেট। জয়ের জন্য ভারতের দরকার ৭ উইকেট। ইংল্যান্ডের দরকার ৪২৯ রান। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মতে, চেন্নাইতে ্দ্বিতীয় টেস্টে ভারতের জয় শুধু সময়ের অপেক্ষা।