বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর এবার শ্রীলঙ্কা। নতুন বছরের প্রথম টি টোয়েন্টি সিরিজটাও ঘরের মাঠে জয় দিয়েই শুরু করলেন বিরাট কোহলিরা। গুয়াহাটিতে সিরিজের প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে যাওয়ার পর পরের দু'টি ম্যাচ সহজে জিতে সিরিজ পকেটে পুড়ে নিলেন কোহলিরা। ব্যাটিং, বোলিং থেকে শুরু করে ফ্লিডিং, এ দিন পুনেতে সব বিভাগের পারফরম্যান্সই স্বস্তি দেবে ভারতীয় দলকে। 

এ  দিন পুনেতে টসে জিতে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান লসিথ মালিঙ্গা। কিন্তু প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেট হারিয়ে ২০১ রান তোলে। জবাবে ১৫.৫ ওভারে মাত্র ১২৩ রানে অল আউট হয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। ভারতের হয়ে দুরন্ত শুরু করে দুই ওপেনার কে এল রাহুল (৫৪) এবং শিখর ধওয়ান (৫২)।  এর পর মনীশ পান্ডের ১৮ বলে ৩১ এবং বিরাটের ১৭ বলে ২৬ রানের ইনিংস ভারতকে বড় রানের দিকে এগিয়ে দেয়। শেষ দিকে মাত্র ৮ বলে ২২ রান করে দলের রানকে দুশো পার করিয়ে দেন শার্দুল ঠাকুর। 

এ দিন প্রথম একাদশে তিনটি বদল করেছিল ভারত। তার মধ্যে সবথেকে উল্লেখযোগ্য ছিল প্রথম একাদশ থেকে ঋষভ পন্থের বাদ যাওয়া। তাঁর জায়গায় সুযোগ দেওয়া হয় সঞ্জু স্যামসনকে। কিন্তু ব্যাট হাতে যেন কোনও উইকেটকিপারই ভরসা দিতে পারছেন না বিরাটদের। এ দিন তিন নম্বরে নেমে মাত্র ৬ রান করেই ফেরেন সঞ্জু।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই চাপে পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। বড় রান তাড়া করতে গিয়ে প্রথম ৬ ওভারেই মাত্র ৩৪ রানে ৪ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। ভারতের হয়ে এ দিনও সফল হন নবদীপ সাইনি। ২৮ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তিনি। দু'টি করে উইকেট নেন শার্দুল ঠাকুর এবং ওয়াশিংটন সুন্দর। শ্রীলঙ্কার হয়ে অর্ধ শতরান করেন ধনঞ্জয় ডি সিলভা। ভারতের এবার কঠিন পরীক্ষা ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজ। 

ব্যাটে বলে দুরন্ত পারফরম্যান্স করে ম্যাচ ও সিরিজের সেরা হন শার্দুল ঠাকুর। শামি, বুমরা, ভুবনেশ্বর কুমাররা তো ছিলেনই, সীমিত ওভারের ক্রিকেট বিরাটকে বড় ভরসা দিচ্ছেন শার্দুল ঠাকুর, নবদীপ সাইনিরা।