তার ৬ ফুট ৮ ইঞ্চির চেহারার দিকে সবাই যখন তাকিয়ে থাকতো তখন অস্বস্তিতে ভুগতেন পেসার কাইল জেমিসন। ছেলে বিচলিত থাকলেও এই সমস্যা নিয়ে কোনোদিন বেশি দুশ্চিন্তা করেননি তার বাবা মাইকেল জেমিসন। কারণ তিনি প্রথম থেকেই বুঝতে পেরেছিলেন তার ছেলের সাফল্য একদিন ছেলেকে বিখ্যাত করে দেবে। 

বাবার প্রত্যাশা পূরণের যাত্রাটা ভালো ভাবেই শুরু করলেন ২৫ বছরের কাইল জেমিসন। নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে প্রথম দিনেই তুলে নিলেন তিন উইকেট। প্রথম ম্যাচেই তুলে নিলেন বিরাট কোহলি এবং চেতেশ্বর পূজারার উইকেট। 

একমুখ হাসি নিয়ে কাইল জেমিসনের বাবা জানিয়েছেন যে শুধুমাত্র ক্রিকেটের মাঠে নয়, ছোটবেলা স্কুলেও সকলে তার ছেলের দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকতো। তার ছেলের বিশাল লম্বা উচ্চতাই তার নজর কেড়ে নিত। সেই নিয়ে সবসময় অস্বস্তিতে থাকতেন ছেলে কাইল। সেই সময় হাসিমুখে তিনি ছেলেকে বোঝাতেন যে একসময় উচ্চতার জন্য নয়, সাফল্যের জন্য সকলে তার দিকে তাকিয়ে থাকবে, একগাল হাসি মুখে নিয়ে জানিয়েছেন মাইকেল জেমিসন। ছেলের বিখ্যাত হয়ে উঠার যাত্রার শুরুটা দেখে তৃপ্ত তিনি। 

পিটিআই কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মাইকেল জেমিসন জানিয়েছেন প্রত্যাশা থাকলেও এতটা ভালো শুরু করবে ছেলে তা তিনি আশা করেননি। বিরাট কোহলি এবং চেতেশ্বর পূজারার উইকেট নিয়ে শুরুর চেয়ে ভালো শুরু আর হতে পারতো না। কাইলের মা ছেলের অভিষেকের প্রথম দিনটা দেখতে পারেননি। তার ছেলের কেরিয়ারের দীর্ঘজীবনও কামনা করেছেন তিনি। 

১৭ বছর বয়সে বেসবল নিয়ে মেতে থাকলেও পরবর্তী কালে বাবার উৎসাহেই ক্রিকেট কে নিজের কেরিয়ার হিসাবে বেছে নেন কাইল জেমিসন। এখন দেখার, বাকি ম্যাচে এবং দ্বিতীয় টেস্টে তার বোলিং নিউজিল্যান্ডকে ম্যাচ জেতাতে পারবে কিনা।