সুপার সানডে তে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ও দিল্লি ক্যাপিটালসের মধ্যে চলছে আইপিলের মেগা ম্যাচ।  এখনও পর্যন্ত দিল্লি ও পঞ্জাব কোনও দলই একবারও আইপিএল চ্যাম্পিয় হতে পারেনি। তাই দুই দলের দুই তরুণ অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়র ও কেএল রাহুলকে ঘিরে নতুন করে স্বপ্ন দেখছে দুই দল। দুবাইতে খেলা হচ্ছে এই ম্য়াচ। মেগা ম্য়াচে টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের অধিনায়ক কেএল রাহুল। প্রথম ১০ ওভারের শেষে দিল্লি ক্যাপিটালসের স্কোর   রান।

দিল্লির হয়ে ওপেনিংয়ে নামেন  শিখর ধওয়ান ও পৃথ্বী শ। কিন্তু ম্যাচের শুরুতেই ধাক্কা খায় দিল্লি দল।  ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারে রান আউট হয়ে প্যাভেলিয়নে ফেরত যান শিখর ধওয়ান। শামির বলে ক্যাচ মিস করেন কেএল রাহুল। তখনই রান নিতে গিয়ে আউট হন ধওয়ান। ৬ রানে প্রথম উইকেট পড়ে দিল্লির। এরপর ক্রিজে আসেন শেমরন হেটমায়ার। শামির বলে সেই ওভারেই ক্যাচ দেন হেটমায়ার। কিন্তু তা ধরতে ব্যর্থ হন কে গৌথম। তৃতীয় ওভারেও ভাল বল করেন শেলডন কটরেল। চতুর্থ ওভারে দলের ৯ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট পড়ে দিল্লির। শামির বলে পুল মারতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন পৃথ্বি শ। একই ওভারে শেমরন হেটমায়ারকেও ফেরত পাঠান শামি। ১৩ রানে তৃতীয় উইকেট পডে দিল্লির। হেটমায়ার করেন ৭ রান। প্রথম পাওয়ার প্লেতে কার্যত আগুন ঝড়ান পঞ্জাব পেসাররা। ৬ ওভারে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ২৩।

পাওয়ার প্লে শেষেই স্পিনার নিয়ে আসেন কেএল রাহুল। সপ্তম ওভারে বল করতে আসেন কে গৌথম। ইনিংস কিছুটা ধরে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন দিল্লি অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়র ও ঋষভ পন্থ। অষ্টম ওভারে আঁটোসাটো বোলিং করেন ক্রিস জর্ডান। ৮ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর ছিল ৩ উইকেটে ৩২। নবম ওভারের শুরুতেই কে গৌথমকে একটি চার মারেন পন্থ। সেই ওভেরেই আরও একটি ছয় মারেন শ্রেয়স আইয়র। ৯ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর ৪৫। ৩ উইকেট দ্রুত পড়ার ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন শ্রেয়স আইয়র ও ঋষভ পন্থ। ১০ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর ৪৯ রানে ৩ উইকেট।