ভারতের সিরিজ বাঁচানোর স্বপ্নের জলাঞ্জলি দিয়ে দিল ভারতের অতি নিম্ন মানের ব্যাটিং। যাবতীয় আশা আকাঙ্ক্ষা চূর্ণ করে আবারও বিদেশের মাটিতে লজ্জার হোয়াইটওয়াশ উপহার দিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। সাথে আরও একবার প্রকট হয়ে উঠলো ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সুইং সামলানোর অক্ষমতা। সাথে সাথে উঠে এলো আরও কিছু প্রশ্ন যা হয়তো ভারতের হারের সাথে যুক্ত।

এই মুহুর্তে টেস্ট ক্রিকেটে বিশ্বের সেরা উইকেটকিপার ঋদ্ধিমান সাহা। কিন্তু সিরিজের শুরু থেকেই তার জায়গায় সুযোগ দেওয়া হয় রিসভ পন্থকে। এই সূত্রে ভারতের কোচ রবি শাস্ত্রী জানান যে ব্যাটিংয়ের দিক দিয়ে দেখতে গেলে রিসভ পন্থ ঋদ্ধির থেকে অনেকটাই এগিয়ে। দেশের মাটিতে যখন স্পিনাররা বড়ো বড়ো টার্ন করায় তখন ঋদ্ধির মতো শিল্পী কিপারের প্রয়োজন। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের মাটিতে অত উচ্চমানের কিপিংয়ের চেয়ে ব্যাটিংটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই ঋদ্ধির চেয়ে পন্থকেই বেশি প্রয়োজন ভারতের। 

যদিও এই যুক্তি ধোপে টেকেনি। রিসভ পন্থের মধ্যে বড় ইনিংস খেলার কোনো প্রবণতাই চোখে পড়েনি কারোর। বার বার গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দলকে ব্যাট হাতে ভরসা দেওয়ার বদলে নিজের উইকেট বোলারকে একপ্রকার উপহারই দিয়ে এসেছেন তিনি। কিপিংয়েও আহামরি কিছুই করেননি। সাংবাদিক সম্মেলনে এসে জানিয়েছেন নেটে পন্থের পারফরম্যান্স দেখে তাকেই খেলানোর সিদ্ধান্ত নেয় দল। এতে অন্য কোনো ঘটনা নেই। তা সত্ত্বেও প্রশ্ন থাকছেই। অনেকে মনে করেন ব্যাটিংই যদি মূল লক্ষ্য হয়ে থাকে তবে টি-টোয়েন্টি বা ওয়ান ডে তে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা লোকেশ রাহুলকে কেন টেস্টে সুযোগ দেওয়া হল না। প্রশ্ন রয়েছে হাজারটা। উত্তর নেই কারোর কাছে।