ভারতীয় ক্রিকেটে অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের জয়ে সঙ্গে যেন পাল্লা দিচ্ছেন তরুন প্রতিভারাও। সম্প্রতি এমনই এক নজির গড়লেন ঊনিশ বছরের তরুন খেলোয়াড় শুভমন গিল। বৃহস্পতিবার ত্রিনিদাদের ব্রেন লারা স্টেডিয়ামে হওয়া টেস্ট ক্রিকেটে নিজের প্রতিভার এক অসাধারন পরিচয় দিয়েছেন গিল। ত্রিনিদাদের মাঠে নিজের দক্ষতায় দর্শকের মন জয় করে নিয়েছিলেন তিনি। সেই সঙ্গে প্রাক্তন ভারতীয় খেলোয়াড় গৌতম গম্ভীরের রেকর্ডও ভেঙেছেন তিনি। ওই টেস্ট ম্যাচে মোট দুটি সেঞ্চুরি করেছেন গিল। 

 চলতি বছরের ২৪ জুলাই থেকে শুরু হয়েছে  প্রথম শ্রেণীর ভারতীয় দলের এই ওয়েস্টইন্ডিজ সফরের টেস্ট সিরিজ। ৬ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ছিল এই সিরিজের তৃতীয় দিন। আর এদিনই হল গিলের পাল্লা ভারী। ২০০২ সালে ভারতের বোর্ড প্রেসিডেন্ট এগারোর দলে জিম্বাবয়ের বিরুদ্ধে কনিষ্ঠতম ক্রিকেটার হিসাবে দুটি সেঞ্চুরি মেরে রেকর্ড গড়েছিলেন গম্ভীর। তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ২০ বছর ১২৪ দিন। তাঁর সেই রেকর্ডই ভাঙলেন গিল। ১৯ বছর ৩৩৪ দিন বয়সে ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে ২৫০ রানে ২০৪ রান করেছেন শুভমন। যার মধ্যে রয়েছে ১৯ টি চার ও ২ টি ছয়।  শুরুর ব্যাটসম্যানরা জলদি আউট হয়ে গেলেও অধিনায়ক হনুমা বিহারির সঙ্গে ৩১৫ রানের পার্টনারশিপে ম্যাচ শেষ করেছেন এই তরুন খেলোয়াড়। 

এ সময়ে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন গিল। তাই এই ঊনিশ বছরের তরুন খেলোয়াড়কে নিয়ে আগেই বহু জল্পনা শুরু হয়েছিল ক্রিকেট মহলে। চলতি ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে ভারতীয় দলে গিলকে জায়গা না দেওয়া নিয়েও জল ঘোলা হয়েছিল অনেক। এমনকী প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার সৌরভ গাঙ্গুলিও মুখ খুলেছিলেন সেই ব্যাপারে। তিনি এটাও বলেছিলেন যে সফরে শুভমনকে সফরে না রেখে ভুলই করেছে ভারতীয় দল এবং এটার মাশুলও দিতে হতে পারে বিরাটদের। ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে জাতীয় দলে সুযোগ না পাওয়ায় হতাশ হয়েছিলেন গিল নিজেও। সকলের সামনে প্রকাশ করেছিলেন তাঁর হতাশা। তবে তাতে লাভ কিছুই হয়নি। ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে এই তরুন খেলোয়াড়দের প্রদর্শনের কথাকে সামনে রেখে এই প্রস্তাবটি উড়িয়ে দিয়েছিলেন বিসিসিআই কর্তা এমএসকে প্রসাদ। কিন্তু এই হতাশার পরেও নিজের ফর্ম এতটুকু  পরিবর্তন আসতে দেননি শুভমন। বরং দিনের পর দিন বাড়িয়ে চলেছেন নিজের খেলার দক্ষতা। তাই এরপর নিজের ফর্মে কিভাবে আরও ভালো পরিবর্তন করতে পারেন সেদিকেই নজর থাকবে এই তরুন ক্রিকেটারের।