ভালো আছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়া। বৃহস্পতিবার বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের হার্টে দুটি স্টেন্ট বসানো হয়। সম্পূর্ণ নির্বিঘ্নে হয় অস্ত্রপচার। বৃহস্পতিবার রাতে  সৌরভের ভালো ঘুম হয়েছে বলা জানানো হয়েছে হাসপাতালের তরফে। শুক্রবার সকালে উঠে প্রাতরাশ সেরেছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। উঠে বসেছেন তিনি। সকলের সঙ্গে কথাও বলেছেন। এমনকী মোবাইলে তার বিভিন্ন মিটিংয়ে যোগদান দেওয়ার ইচ্ছেও প্রকাশ করেছেন তিনি। তবে হাপাতেলের তরফে তাকে মোবাইল দেওয়া হয়নি। সম্পূর্ণ চাপমুক্ত রাখতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে চিকিৎসকরা।

শুক্রবার সকাল থেকে সম্পূর্ণ স্বাভাবিক থাকলেও তাকে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটেই রাখা হয়েছে। সেখানেই চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন বিসিসিআই সভাপতি। প্রতি ঘণ্টায় সৌরভের শারীরিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে আগামি আরও ২ থেকে ৩ দিন হাসপাতালে থাকতে হতে পারে সৌরভকে। সব কিছু পুরোপুরি স্বাভাবিক থাকলে আগামি রবিবার ছুটি একটা সম্ভাবনা রয়েছে বলে খবর হাসপাতাল সূত্রে। তবে সব কিছুই নির্ধারিত হবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ইচ্ছার উপর। কারণ গতবারও নিদের ইচ্ছায় একিন অতিরিক্ত হাসপাতালে থেকেছিলেন বিসিসিআই সভাপতি। বৃহ্পতিবার সৌরভকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত, বুধবার হঠাৎ বুকে ব্যাথা হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তার ইকো ও ইসিজি পরীক্ষায় কিছু সমস্যা ধরা পড়ে। বৃহস্পতিবার বাকি দুটি ব্লকেজে বসানো হয় স্টেন্ট। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দেবি শেট্টি ও অশ্বিন মেহেতার তত্ত্বাবধানে হয় গোটা অস্ত্রপচারের প্রক্রিয়া। ছিলেন সৌরভের চিকিৎসায় গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের তিন চিকিৎসক সরোজ মণ্ডল, আফতাব খান ও সপ্তর্ষী বসু।  হাসপাতাল থেকে ছুটি পাওয়ার বছর খানক বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে বিসিসিআই প্রেসিডেন্টকে। একইসঙ্গে কেতে হবে রক্ত তরল রাখার ওষুধ সহ আরও কিছু মেডিসিন।