: ভারত চিরকালই বিখ্যাত স্পিনারদের আঁতুরঘর হিসাবে পরিচিত। ভারতের ক্রিকেটে প্রবেশের সময় থেকেই অফ-স্পিনারদের পাশাপাশি ক্রিকেট বিশ্ব পেয়েছেন নামজাদা অনেক লেগ-স্পিনার। উপমহাদেশের স্পিন সহায়ক স্লো উইকেটে সবসময়ই কার্যকরী হয়ে উঠেছে এই সকল স্পিনাররা। তবে লেগ-স্পিনারদের মধ্যে অনেককেই দেখা গেছে যে কোনো পরিস্থিতিতে ব্যাটসম্যানদের সমস্যায় ফেলতে। কবজির মোচড়ে তাদের ডান হাতি ব্যাটসম্যানদের থেকে বল সরিয়ে নিয়ে আসার শিল্প, কিংবা গুগলিতে সম্পূর্ণ উল্টো ভেলকি দেখিয়ে ব্যাটসম্যানদের মাত দেওয়ার ঘটনা এখনো ছবির মতো ছাপা আছে ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। 

এখন কথা হচ্ছে হঠাৎ লেগ-স্পিনার-দের প্রসঙ্গ উঠছে কেন। সদ্য সমাপ্ত হওয়া অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ এবং বর্তমানে চলতে থাকা মহিলা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত যথেষ্ট সুন্দর ক্রিকেট খেলেছে। প্রতিপক্ষের ব্যাটিং অর্ডার বার বার কেঁপে গেছে ভারতীয় বোলিংয়ের সামনে। এর কারণ মূলত দুজন। অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে রবি বিষ্ণই এবং মহিলা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পুনম যাদব। দুজনের কবজির মোচড়ে তৈরি ঘূর্ণির কুলকিনারা পাননি ব্যাটসম্যানরা। 

৯০ এর দশক থেকে যারা ক্রিকেট দেখে আসছেন, রবি ও পুনমের পারফরম্যান্স তাদের মনে করাবে সেরা ফর্মে থাকা ওয়ার্ন কিংবা কুম্বলের কথা। তাদের লেগ-স্পিন বা গুগলিতে যেভাবে ধরাশায়ী হতেন বিশ্বের তাবড় তাবড় ব্যাটসম্যানরা। ঠিক সেভাবেই নিজেদের কবজির ভেলকিতে ব্যাটসম্যানদের সমস্যায় ফেলছেন। দক্ষিণ আফ্রিকায় অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ১৭ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী হয়েছেন রবি। অস্ট্রেলিয়ায় আয়োজিত মহিলা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এখনো অবধি সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী পুনম। পিচের পরিস্থিতি তাদের বোলিংয়ে প্রভাব ফেলে তার সবচেয়ে বড় প্রমান তাদের এই পারফরম্যান্স

এর পরে অস্ট্রেলিয়াতেই আয়োজিত হবে পুরুষদের টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ভারতের তরফ থেকে ২ জন লেগ-স্পিনার হিসাবে উপস্থিত থাকবে কুলদীপ যাদব ও যজুবেন্দ্র চাহাল। যদিও ২০১৯ বিশ্বকাপের আগে অবধি ভয়ংকর দেখানো এই জুটির সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স খুব একটা চলনসই নয়। এবার দেখার তাদের নিয়ে অধিনায়ক বিরাট কোহলি কি সিদ্ধান্ত নেন।