একটা সময়ে ভারতীয় টেস্ট ব্যাটিং লাইনআপের, বিশেষ করে বিদেশের মাঠে অন্যতম বড় ভরসা ছিলেন আজিঙ্কা রাহানে। কিন্তু গত কয়েকটি সফরে ব্য়াট হাতে একেবারেই পরিচিত ফর্মে দেখা যায়নি ভারতের টেস্ট সহঅধিনায়ককে।  ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে দলে সুযোগ দিলেও তাঁর ফর্ম নিয়ে যথেষ্ট চিন্তা রয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট মহলে। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি অবশ্য জিঙ্কস-কে নিয়ে চিন্তার কোনও কারণই দেখছেন না। ক্যারিবিয়ান সফরে উড়ে যাওয়ার আগে রাহানের পক্ষেই ব্য়াট ধরে তিনি বলেছেন, তাঁর মতো খেলোয়াড়কে নিশানা করার মানেই নেই। আসন্ন সফরেই আজিঙ্কাকে চেনা ফর্মে দেখা ।যাবে বলে তাঁর আশা।
 
রাহানে কেরিয়ার শুরু করেছিলেন ৪৩.৪ গড়ে। এমনকী ২০১৬ সালে তাঁর ব্যাটিং গড় ছিল ৫৪.৪। কিন্তু গত দুই বছরে একের পর এক সিরিজে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। ২০১৮-১৯ অস্ট্রেলিয়া সফরে ৪ টেস্টে তার রান ছিল মাত্র ২১৭। যার প্রভাব পড়েছে রাহানের পরিসংখ্যানেও। ২০১৭ সালে তেই তাঁর রানের গড় নেমে যায় ৩৪.৬২-এ। আর ২০১৮-তে আরও কমে হয় ৩০.৬৬। ফলে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে রাহানেকে বাদ দিয়ে রোহিত শর্মা-কে খেলাতে হয়েছিল।

ওয়েস্টইন্ডিজ সফরের আগে শেষ সাংবাদিক সম্মেলনে স্বাভাবিকভাবেই রাহানের ফর্মের প্রসঙ্গ ওঠে। বিরাট অবশ্য রাহাবনের পাশেই দাঁড়িয়েছেন। তাঁর মতে ভারতীয় দলের জন্য রাহানে খুবই মুল্যবান খেলোয়াড়। শুধু ব্যাট হাতেই নয়, ফিল্ডার হিসেবেও তিনি দুর্ধর্ষ। স্লিপে ফিল্ডিং করার সময়ে অসম্ভব কিছু ক্যাচ লুফে খেলা ঘুরিয়ে দিয়েছেন। সেই সঙ্গে চাপের মুখে নিজের সেরাটা বের করে আনার দক্ষতা রয়েছে আজিঙ্কার। কোহলির যুক্তি, টেস্ট ক্রিকেটে ৪৩ ব্যাটিং গড় যাঁর তিনি তো আর খারাপ খেলোয়াড় নন। যে কোনও খেলোয়াড়ই সাময়িক ফর্ম হারাতে পারেন। রাহানের ফর্মে ফেরাটা স্রেফ সময়ের অপেক্ষা। টেস্ট সহঅধিনায়কের জন্য সেই সময়টা ভারত যে দেবে তা কোহলির কথাতেই স্পষ্ট।