কিছুদিন আগেই মোদী বিরোধিতার জন্য তাঁৎ মেয়েকে ধর্ষণ করা হবে হুমকি পেয়েছিলেন বলিউড পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ। এবার পদত্যাগের ইচ্ছে প্রকাশ নিয়ে সেই অনুরাগই একসঙ্গে বিঁধলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। দুই নেতানেত্রীরই পদত্যাগের সদিচ্ছা নিয়ে কার্যত প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন অনুরাগ। 

লোকসভা নির্বাচনে দলের খারাপ ফলের জন্য কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটিতে দলের সভাপতির পদ ছেড়ে দেওয়ার প্রস্তাব দেন রাহুল গাঁধী। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে প্রত্যাশিত ফল না হওয়াতে হতাশ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও দলীয় বৈঠকে মুখ্যমন্ত্র্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিতে চান বলে দাবি করেন। দু' ক্ষেত্রেই অবশ্য তাঁদের প্রস্তাব খারিজ হয়ে গিয়েছে দলে। আর তা নিয়ে নিজের টুইটে ব্যঙ্গ করেছেন অনুরাগ।

টুইটারে অনুরাগ লিখেছেন. "মমতা দিদি পদত্যাগ করতে চাইলেন, কিন্তু তাঁর দল তা খারিজ করল। রাহুল গাঁধীও ইস্তফা দেবেন বললেন, কিন্তু সেই প্রস্তাবও তাঁর দল মানল না। আমরাও মুখ বুজে সব বিশ্বাস করতে চাইলাম, কিন্তু আমাদের বুদ্ধি তা করতে দিল না। আমিও এই টুইটটা করতে চাইনি, কিন্তু টুইটার ব্যবহাকারীরা আমার সেই ইচ্ছের সঙ্গে সহমত  হল না।" অনুরাগের মন্তব্যেই স্পষ্ট, রাহুল গাঁধী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগ করার সদিচ্ছা নিয়েই প্রশ্ন তুলতে চাইছেন তিনি। 

রাজনৈতিক বিষয়ে এর আগেও একাধিকবার মতামত দিয়েছেন অনুরাগ। বিজেপি বিরোধিতাতেও এর আগে সরব হয়েছেন তিনি। যার জেরে তাঁর মেয়েকে ধর্ষণ করা হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয় তাঁকে। গত ২৩ মে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনুরাগ নিজেই অভিযোগ করেন, বিজেপি-র জয় নিশ্চিত হওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দিচ্ছে কিছু বিজেপি সমর্থক। 

এর পরেই অবশ্য বিষয়টি নিয়ে নড়েচড়ে বসে মুম্বই পুলিশ। যে ব্যক্তি অনুরাগ কাশ্যপের মেয়েকে হুমকি দিয়েছিল, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন অনুরাগ।