নির্বাচন কমিশনকে সরাসরি বয়কট করে দিলেন নির্বাচন কমিশনার অশোক লাভাসা। জানিয়ে দিলেন কমিশনের বৈঠকেও যেতেও আগ্রহী নন তিনি। কারণ?তাঁর বয়ান রেকর্ড না করেই প্রধামনন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ক্লিনচিট দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

প্রসঙ্গত ২০১৯ এর সাতদফা  লোকসভা নির্বাচনে ছয়বার নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে। প্রতিবারই তাঁকে মুক্তহস্তে 'গঙ্গাপার' করিয়ে দিয়েছে কমিশন। এতেই চটেছেন কমিশনার অশোক লাভাসা। কোন যুক্তিতে নরেন্দ্র মোদী ক্লিন চিট পেল, কেন তাঁর বয়ান রেকর্ড করা হল না, জানতে চান তিনি। প্রসঙ্গত কমিশনে তিন সদস্যের কমিটিতে ছিলেন সুনীল অরোরা, অশোক লাভাসা ও সুশীল চন্দ্র।

এক সর্বভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশ, গত ১৬ মে অশোক লাভাসা রীতিমতো চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন, তাঁর লিখিত বয়ান না রেকর্ড করলে কোনও বৈঠকেই তিনি আগ্রহী নন। প্রয়োজনে আইনি পথে যাবেন তিনি। শুধু তাই নয় তাঁর  নিজের মতকে তিনি 'সংখ্যালঘু' মত বলেও দাবি করছেন!

প্রসঙ্গত গুজরাটের পতনে নরেন্দ্র মোদীর দেওয়া ৪ মে-এর ভাষণকে ক্লিনচিট দেওয়া নিয়েই শুরু কমিশন বনাম কমিশনার লড়াই। তখন থেকই নিজেকে নিস্ক্রিয় প্রতিনিধি ভাবতে শুরু করেন অশোক লাভাসা। এবার এই চিঠিকে কেন্দ্র করে বিষয়টা দাঁড়াল কমিশন বনাম কমিশনার সংঘাত। তা কোথায় গিয়ে শেষ হবে? আর জেনে লাভ কী!