ভোটে হারতে শুরু করলেই রাজ্যের গণনাকেন্দ্রগুলিতে ঝামেলা পাকাবে তৃণমূল। এমন কী, ভোট গণনা ভণ্ডুল করে দেওয়ার চেষ্টা করতে পারে তৃণমূল সমর্থকরা। এই আশঙ্কা থেকেই গণনার আগের দিন রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দফতরে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে নালিশ জানিয়ে এলেন বিজেপি নেতারা। তাঁদের দাবি, বাড়তি কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোটের দিন গণনা কেন্দ্রে তৃণমূলের বিশৃঙ্খলা আটকাতে ব্যবস্থা নিক কমিশন। 

দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে রাজ্যের অনেক গণনাকেন্দ্রের বাইরেই পাহারায় বসেছেন তৃণমূল কর্মীরা। তাঁদের আশঙ্কা, ইভিএম-এ অদলবদল হতে পারে। গণনাকেন্দ্রের বাইরে শাসক দলের কর্মীদের এই ভিড়কে ভাল চোখে দেখছে না বিজেপি। নির্বাচন কমিশনে গিয়ে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার অভিযোগ করেন, "যারা ভোট লুঠ করে তারা আবার ইভিএম পাহারা দিচ্ছে। আমাদের আশঙ্কা ভোটে হারলেই তৃণমূলের বাহিনী গণনাকেন্দ্রে গোলমাল পাকাতে পারে। ইভিএম পাহারা দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনী আছে, পুলিশ আছে, নির্বাচন কমিশন রয়েছে। সেখানে তৃণমূল কর্মীরা কী করছে?"

বিজেপি-র দাবি, ভোট পরবর্তী হিংসার কথা মাথায় রেখে রাজ্যে যে দুশো কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে, তাদেরকেও গণনার দিন কাজে লাগানো হোক। গণনাকেন্দ্রের দুশো মিটারের মধ্যে যাতে কোনওরকম জটলা না হতে পারে, সেই দাবিও জানিয়েছে বিজেপি।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবারও একই ধরনের আশঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁরও আশঙ্কা, রাজ্যে ভোটে হারলে অশান্তির পরিবেশ তৈরি করবে তৃণমূল। সেক্ষেত্রে অবশ্য পাল্টা বিজেপি কর্মীরা তা প্রতিরোধ করবেন বলেও হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন দিলীপ।