রবিবার (১২ মে), লোকসভা ভোটের ষষ্ঠ পর্যায়ের ভোটগ্রহণ পর্ব চলছে। দেশের ৭টি রাজ্যের ৫৯টি লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গে  হচ্ছে ৮টি আসনে - তমলুক, কাঁথি, ঘাটাল, ঝাড়গ্রাম, মেদিনীপুর, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুরে। সকাল থেকেই বিভিন্ন বুথে লম্বা লাইন দেখা গিয়েছে। তবে দাঁতন, কেশপুর, বেলদা, হলদিয়া, ঘাটাল -সহ বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে অশান্তি হয়েছে। তবে বড় ধরণের সংঘর্ষের খবর এখনও আসেনি।

নির্বাচন কমিশনের দেওয়া হিসেব অনুযায়ী বেলা ১ পর্যন্ত লোকসভা নির্বাচন ২০১৯-এর ষষ্ঠ পর্বে এই রাজ্যে ভোট পড়েছে ৫৫.৫৮ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ভোট পড়েছে তমলুক কেন্দ্রে। এখানে ভোট পড়েছে ৫৯.০৭ শতাংশ। গায়ে গায়েই আছে ঘাটাল, ৫৪.৯৫ শতাংশ। আর এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে কম ভোটদানের হার দেখা গিয়েছে বিষ্ণুপুরে। এখানে ভোট পড়েছে ৫২.৮৪ শতাংশ।

এছাড়া, কাঁথিতে ৫৭.০৯ শতাংশ, ঝাড়গ্রামে ৫৮.২১ শতাংশ, মেদিনীপুর কেন্দ্রে ৫৩.০২ শতাংশ, পুরুলিয়ায় ৫৬.৬০ শতাংশ ও বাঁকুড়া কেন্দ্রে ৫২.৮২ শতাংশ ভোট পড়েছে। এদিন তীব্র গরম থাকায়  এরপর থেকে দুপুরের সময়টা ভোটের লাইনে ভাটা দেখা যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। আবার রোদ পড়ে বিকেলের দিকে এই হার বাড়তে পারে।

বেলা ১১ পর্যন্ত লোকসভা নির্বাচন ২০১৯-এর ষষ্ঠ পর্বে পশ্চিমবঙ্গে ভোট পড়ার হার ছিল ৩৭.৯৭ শতাংশ। ঝাড়গ্রাম কেন্দ্রে, ৪১.৮৭ শতাংশ, তমলুকে ৪১.২০ শতাংশ, বাঁকুড়ায় ৩৩.০৭ শতাংশ, কাঁথিতে ৩৭.৫৩ শতাংশ, ঘাটালে ৩৯.৪১ শতাংশ, মেদিনীপুরে ৩৭.৪২ শতাংশ, পুরুলিয়ায় ৩৫.৭৮ শতাংশ ও বিষ্ণুপুর কেন্দ্রে ৩৭.৫০ শতাংশ ভোট পড়েছিল।

সকাল ৯টা পর্যন্ত ভোটদানের চিত্রটা ছিল এরকম - তমলুকে ২০.৭৩ শতাংশ, কাঁথিতে ১২.০৫ শতাংশ, ঘাটালে ১৮.৫০ শতাংশ, ঝাড়গ্রামে ১৮.৪৯ শতাংশ, মেদিনীপুরে ১৬.০৫ শতাংশ, পুরুলিয়ায় ১৬.৯২ শতাংশ, বাঁকুড়ায় ১১.৬২ শতাংশ, বিষ্ণুপুরে ১৮.৮৯ শতাংশ।