তিন বছর চার দিনের তফাত। মে মাসের লক্ষ্মীবার কি ফের শুভ হয়ে দেখা দেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য? তা জানা যাবে আর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই। 

তিন বছরের ব্যবধানে দুই বৃহস্পতিবারের মধ্যে যেন অনেক মিল! ২০১৬ সালের ১৯ মে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশিত হয়েছিল। ঘটনাচক্রে সেটিও ছিল এমনই এক বৃহস্পতিবার। সেবারও পরিস্থিতি কিন্তু পুরোপুরি মমতা অনুকূলে ছিল না। পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকার পর পরীক্ষা ছিল তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের। তার উপরে তৃণমূলের বিরুদ্ধে জোট বেঁধে লড়েছিল বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেস।

এ বারও এক্সিট পোলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের জন্য খুব ভাল পূর্বাভাস দেওয়া হয়নি। রাজ্যে বিজেপি ভাল ফল করবে বলে এক্সিট পোলে আভাস দেওয়া হয়েছে। তিন বছর আগের বিধানসভা নির্বাচনেও বেশ কয়েকটি এক্সিট পোলেও কিন্তু মমতার দলের জন্য কঠিন পরীক্ষার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল। এমনকী, সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলেও ম্যাজিক ফিগারের থেকে খুব বেশি আসন তৃণমূল পাবে না বলেই অধিকাংশ এক্সিট পোলে ইঙ্গিত ছিল। 

ফল বেরোতেই অবশ্য সেই সমস্ত এক্সিট পোল মিথ্যে প্রমাণিত হয়েছিল। বাস্তবে দেখা যায় ২০১১-র খেরেও বেশি আসন নিয়ে ক্ষমতায় ফিরেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সবুজ ঝড়ে উড়ে গিয়েছিল বাম-কংগ্রেস জোট, বিজেপি। রাজ্যে এককভাবে ২১১টি আসন জিতেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। মে মাসের বৃহস্পতিবার যেন দু' হাত উপুড় করে দিয়েছিল মমতার জন্য। 

এমন অভিজ্ঞতা রয়েছে বলেই হয়তো এ বারেও এক্সিট পোলকে খুব গুরুত্ব দিতে নারাজ মমতা। মাত্র তিন বছরের ব্যবধান, আজও সেই বৃহস্পতিবার। মমতা ঠিক প্রমাণিত হন না ভুল, লক্ষ্মীবারের বিকেলের মধ্যেই তা আজ স্পষ্ট হয়ে যাবে।