নুসরতের পরে মিমি চক্রবর্তীর সঙ্গে একই মঞ্চে প্রচার করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মঞ্চেই বললেন কেন মিমিকেই যাদবপুর কেন্দ্রের প্রার্থী হিসেবে বেছে নিলেন। 

লোকসভা কেন্দ্রে যাদবপুরের তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে মিমি চক্রবর্তীর নাম শুনে অনেকেই চমকে গিয়েছিলেন। সবার একটাই প্রশ্ন ছিল, রাজনীতির সঙ্গে কোনও রকম যোগ না থাকা সত্ত্বেও কীভাবে যাদবপুরের মতো কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী হওয়ার টিকিট পেলেন মিমি। আজ বারুইপুরের প্রচার সভায় সেই ফিরিস্তিই দিলেন দলনেত্রী। 

এদিন সেই কারণ হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মিমিকে বেছে নিয়েছি কারণ একটা পরিবারে মা, বাবা, দাদু ঠাকুমা সবাই থাকে। আমাদের দলে অনেক ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, সাহিত্যিক, নাট্যকার আছেন। তাই সবাইকে নিয়েই চলা উচিত। 

এদিন এই সভামঞ্চে মমতা দাবি করেন, যাদবপুরে বিজেপি ও সিপিআইএম এক হয়ে গিয়েছে। এই কেন্দ্রে সিপিআইম থেকে প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়েছেন বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য। 

প্রসঙ্গত, গতকাল হাসনাবাদে নুসরতকে নিয়ে প্রচার করেন মমতা। সেখানে তিনি বলেন, নুসরত মুসলিম আর আমি হিন্দু। আমাদের মধ্যে কোনও ভেদাভেদ নেই।  নুসরতের ও যা রক্ত আমারও তাই। ওরও দুটো চোখ, আমারও তাই। ওরও দুটো পা,আমারও দুটো পা। ওরও দুটো কিডনিস আমারও দুটো কিডনি। ওরও একটা লিভার, আমারও একটা লিভার। পার্থক্য একটাই, নুসরতকে দেখতে সুন্দর, আমাকে দেখতে সুন্দর নয়।