ভোটে তৃণমূলের খারাপ ফলের জের। ভোট মিটতেই রাজ্য মন্ত্রিসভায় বেশ কিছু বড় রদবদল করতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২১ বিধাননসভা নির্বাচনের আগে সরকারের কাজে আরও গতি আনতেই এই পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই মন্ত্রিসভায় রদবদল সংক্রান্ত ফাইল রাজ্যপালের সইয়ের জন্য রাজভবনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফে। 

বাঁকুড়া থেকে লোকসভা নির্বাচনে লড়ার জন্য পঞ্চায়েত মন্ত্রীর পদ থেকে  ইস্তফা দিয়েছিলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। নির্বাচনে পরাজিত হওয়ায় তিনিও ওই পদে ফিরতে চলেছেন। যেহেতু উত্তরবঙ্গের মতো জঙ্গলমহলেও তৃণমূলের ফল খুব খারাপ হয়েছে, তাই পঞ্চায়েতের সঙ্গেই অভিজ্ঞ সুব্রতকে পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন দফতরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। শুভেন্দু অধিকারীকে পরিবহণ দফতরের পাশাপাশি সেচ ও জল সম্পদ উন্নয়ন দফতরের দায়িত্ব দিয়েছেন মমতা। ব্রাত্য বসুকে বন দফতরের অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এই দফতরের প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে দমকল মন্ত্রী সুজিত বসুকে। জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের সঙ্গে পরিবেশ মন্ত্রকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সৌমেন মহাপাত্রকে। অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ দফতরের সঙ্গে আদিবাসী উন্নয়ন দফতরের অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মলয় ঘটকের হাত থেকে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের দায়িত্ব সরিয়ে তাঁর হাতে শুধুমাত্র আইন এবং শ্রম মন্ত্রকের ভার রাখা হল। 

রাজ্য সরকারের কাজে গতি আনতে মরিয়া মমতা। নির্বাচনের ফলেই স্পষ্ট, রাজ্যের অনেক দফতরের কাজেই ঘাটতি থেকে গিয়েছে। রাজ্যর অন্তত পনেরোজন মন্ত্রী তাঁদের এলাকা থেকে পরাজিত হয়েছেন। এর ফলে দ্রুত মন্ত্রিসভায় রদবদল প্রত্যাশিত ছিল। স্বচ্ছ ভাবমূর্তি রয়েছে এমন নেতাদের বেশি দায়িত্ব দিতে চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।