শনিবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন, তিনি মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু দল তাঁকে বাধা দিয়েছে। মমতার এই দাবিকেই কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। পাল্টা তাঁর দাবি, মানুষ ক্ষমতাচ্যুত না করলে মমতা কোনওদিন ক্ষমতা ছাড়বেন না। 

এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে মুকুল মমতাকে কটাক্ষ করে বলেন, "সংবাদমাধ্যমে হেডলাইন করার জন্য উনি পদত্যাগের নাটক করলেন। নিজেই পদত্যাগ করেছেন, আবার নিজেই সেটা গ্রহণ করেননি। কার কাছে পদত্যাগ করতে চাইলেন উনি, দলের কাছে?  দল মানে কে, আর লিখিত পদত্যাগ পত্র কেউ দেখেছেন?"

এর পরেই মমতাকে আক্রমণ করে মুকুল আরও বলেন, "উনি জীবনে পদত্যাগ করবেন না। ক্ষমতার যে স্বাদ উনি পেয়েছেন, তা ছাড়তে পারবেন না। যতক্ষণ না মানুষ তাঁকে আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলে দিচ্ছে।"

ভোটের  প্রচার পর্বে বার বার বিজেপি নেতারা তাঁর বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু তোষণের অভিযোগ এনেছেন। তার জবাব দিতে গিয়ে শনিবার ক্ষুব্ধ মমতা বলেন, "হ্যাঁ আমি সংখ্যালঘু তোষণ করি। যে গরু দুধ দেয়, তার লাথি খেতে হয়।" রবিবার মমতার এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করেও মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করেছেন মুকুল রায়। তিনি বলেন, "মুসলিম সম্প্রদায় কি গরু? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এটা পরিষ্কার করা উচিত। তার মানে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ সম্পর্কে এটাই তাঁর মূল্যায়ন। এটা মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ ভেবে দেখুন।"

লোকসভা ভোটে এরাজ্যে  বিজেপি-র বিপুল সাফল্যের জন্য বামেদের দায়ী করেছেন মমতা। তাঁর এবং তৃণমূল নেতাদের অভিযোগ, বামেদের ভোট পুরোটাই চলে গিয়েছে বিজেপি-তে। মুকুল এ দিন পাল্টা দাবি করে বলেন, বামেদের ভোট পেয়ে উল্টে লাভবান হয়েছে তৃণমূলই। 

মমতার দাবি নস্যাৎ করে দিয়ে মুকুল আরও দাবি করেন, "বিজেপি নির্বাচনে কোনও জায়গায় টাকা ঢালেনি। বরং সরকারি টাকা নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস ভোটে ঢেলেছে।"