বুধবার একটি জনসভায় প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এক বড় অভিযোগের তীর ছুড়ে দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। মোদী বলেছেন, পরিবার ও শ্বশুরবাড়ির সদস্য়দের সঙ্গে ছুটি কাটানোর জন্য় যুদ্ধজাহাজ আইএনএস বিরাট ব্য়বহার করতেন রাজীব গান্ধী। রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার জন্য় রাখা এই যুদ্ধজাহাজকে এমন ভাবে ব্য়বহার করতেন, যেন তা গান্ধী পরিবারের ব্য়ক্তিগত ট্য়াক্সি ছিল। 

তবে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্য়মের প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, যুদ্ধজাহাজকে ব্য়ক্তিগত খাতে রাজীব গান্ধীই প্রথম ব্য়বহার করেননি। বরং এই ধারা আরও আগেই শুরু করেছিলেম জহরলাল নেহরু।  

জাতীয় সংবাদমাধ্য়ম মাই নেশন কতগুলি ছবি ঘেঁটে দেখেছেন, ১৯৫০-এর  জুনে আইএনএস দিল্লিতে করে ভ্রমণ করছেন নেহরু। ১৯৩৩ সালে নৌসেনার জন্য় বিশেষ প্রযুক্তিতে এই জাহাজ তৈরি করা হয়েছিল। তখন ব্রিটিশ রাজের সময়ে এর নাম ছিল এইচএমএস অ্য়াকিলিস। ১৯৪৮-এ রয়্য়াল ইন্ডিয়ান নেভির কাছে এই জাহাজ বিক্রি করা হয়। তখন এর নাম দেওয়া হয় এইচএমআইস দিল্লি। পরে ১৯৫০-এর এর নামকরণ হয় আইএনএস দিল্লি। ১৯৭৮-এর ৩০ জুন পর্যন্ত এই জাহাজটি পরিষেবায় ছিল।  

একটি ছবি প্রকাশ করেছে মাই নেশন সেখানে দেখা যাচ্ছে, জওহরলাল নেহরুর সঙ্গে ইন্দিরা গান্ধী, রাজীব গান্ধী ও সঞ্জয় গান্ধী জাহাজে করে ভ্রমণ করছেন।  ছবিটি ১৯৫০ সালের। 

নরেন্দ্র মোদী বুধবার এই মর্মেই দাবি করেছেন, রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার জন্য় দেশের সম্পত্তি ব্য়ক্তিগত কারণে ব্য়বহার করা অপমান। এই নিয়ে গান্ধী পরিবারকে রীতিমতো তোপ দেগেছেন মোদী। তবে রাহুল গান্ধী এই  অভিযোগের কী জবাব দেন, তা-ই এখন দেখার।