কলকাতা শহরের বুকে সম্প্রতি ঘটে গিয়েছে নারী নিগ্রহের বেশ কয়েকটি ঘটনা। টলিপাড়ার অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও এরকম ভয়াবহ ঘটনার সাক্ষী থেকেছেন। কিছুদিন আগে বাংলা সিরিয়ালের অভিনেত্রী রুপান্বিতা দাস-এর সঙ্গে ঘটেছিল এক দুঃসাহসিক ঘটনা। বেশ কয়েকজন ছেলে তাঁকে হেনস্থা করে। এরপর পাল্টা রুখে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করেন রূপান্বিতা। পুলিশের বিরুদ্ধেও কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ আনেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ঘটনা নিয়ে সরবও হন রূপান্বিতা। মূলত তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় তদন্ত শুরু করতে বাধ্য হয় যাদবপুর থানা। টলিউডের আর এক অভিনেতা দেবজয় মল্লিক গলফগ্রিন এলাকায় এক মহিলাকে হেনস্থার হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে মার খান। টলিপাড়ার অভিনেত্রী স্বস্তিকা দত্ত-কে উবার চালকের হেনস্থা করার ঘটনাও সামনে এসেছিল।  

শহরের বুকে ঘটে যাওয়া একের পর এক এমনসব নারী নিগ্রহ নিয়ে আরও একবার মুখ খুললেন রূপান্বিতা ও দেবজয়। রবিবার দক্ষিণ কলকাতা তরুণ সংঘ ক্লাবের খুঁটিপূজোতে বিশেষ অতিথি হয়েছিলেন দুজনে। তাঁদের সাহসীকতাকে সকলেই এখন কুর্ণিশ করছেন। চোখের সামনে নারী নিগ্রহ-এর ঘটনা দেখলে যে চুপ করে থাকবেন না তাও এদিন জানিয়ে দেন রূপান্বিতা ও দেবজয়। রুপান্বিতার কথায়-'দূর্গাপুজো মানে নারী শক্তির আরাধনা, পিতৃপক্ষের অবসান হয়ে দেবীপক্ষের আগমন ঘটে। সেই সমগ্র নারীশক্তিকে এক হতে হবে'। অন্যদিকে দেবজয় বলেন 'নারী কথাটাই যথেষ্ট, দূর্গা দুর্গতিনাশিনী কথাটা আমরা ছোটবেলা থেকে শুনে আসছি। কিন্ত সেই কথাটার মর্যাদা আমরা কোথাও যেন হারিয়ে ফেলছি। আমাদের রুখে দাঁড়ানোর সময় এসেছে'। 


 

প্রসঙ্গত দক্ষিণ কলকাতা তরুণ সংঘ ক্লাবের এই বছরের পুজোর থিম হল 'স্বর্ণময়ী'। ক্লাবের তরফ থেকে জানানো হয়েছে তাঁরা এই বছর বাংলার দুটি আর্ট ফর্ম নিয়ে কাজ করছেন। এছাড়া এই বছর জল সংকট কমানোর জন্য কিছু কর্মসূচী রেখেছেন। ১৫ অগাস্ট তাঁরা প্রায় ১০০০ চারা গাছ বিতরণ করবেন। রবিবার তাঁদের খুঁটিপুজোর অনুষ্ঠানের সূচনা করেন সাংসদ মালা রায়। এছাড়া পুজোর অফিশিয়াল পোস্টারেরও শুভ উদ্বোধন করেন তিনি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ নির্বেদ রায়-সহ ক্লাবের অন্যান্য সদস্য-রাও।