সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় মজার ছলেই রাহল বোস পোস্ট করেছিলেন কলার দাম। যে পোস্ট দেখা মাত্রই শেয়ার করেছিলেন সকলেই। একজোড়া কলার দাম নাকি ৪৪২ টাকা! এও সম্ভব। মজার ছলে করা এই পোস্ট নিয়ে এবার বেজায় প্রশ্ন তুলল সমাজের এক মহল। দুটো কলার দাম কখনই এত টাকা হওয়া সম্ভব নয়। কোন খাতে এই অতিরিক্ত দাম, সেই প্রশ্ন নিয়েই এবার জোর জল্পনা।

আরও পড়ুনঃ পাঁচতারা হোটেলে কলার দাম দেখে অবাক রাহুল বোস! রসিদ দেখালেন ভিডিও করে

সেই ভাইরাল ভিডিও দেখে এবার নড়ে চড়ে বসলেন চণ্ডীগড়ের ডেপুটি কমিশনার ও এক্সাইজ মণিদীপ সিং। বুধবারই তিনি এই ঘটনার বিশদ বিরণ জানার জন্য উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের ডাক দেন। ট্যাক্স হিসেবে কত টাকা অতিরিক্ত নিচ্ছে এই হোস্টেল সেই দিকে নজর দিয়েই এবার কড়া পদক্ষেপ নিলেন তিনি। কেন এত দাম! প্রশ্ন তুলে এবার সরাসরি জেরা করা হবে হোটেল কর্তৃপক্ষকে।

এখানেই শেষ নয়। যদি সঠিক যুক্তি না দিতে পারেন হোটেল কর্তৃপক্ষ তবে শান্তিও দেওয়া হবে। এদিন তদন্তের নির্দেশ দেওয়ার পর প্রকাশ্যেই জানান মণিদীপ সিং। এই ঘটনা ক্রেতা সুরক্ষা আইনের আওতাতেও আসতে পারে। সেই দিকেও নজর দিয়েছেন তিনি। পাঁচ শতাংশ জিএসটি বরাদ্দ, তার পরিবর্তে এত বেশি কিভাবে নিতে পারে সেই অভিযোগের আঙুলই এখন জেডব্লিউ ম্যারিয়টের দিকে।