সময় মতো অ্যাম্বুল্যান্স না পাওয়ার জন্য মৃত্যু হল মারাঠি  অভিনেত্রী পূজা জুনজার এবং তাঁর সদ্যোজাত সন্তানের। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, একটু আগে অ্যাম্বুল্যান্স পাওয়া গেলেও  পূজাকে বাঁচানো সম্ভব হতো।  পূজা মারাঠিতে দুটো সিনেমায় মুখ্যচরিত্রে অভিনয় করেছিলেন।  সন্তানসম্ভবা হওয়া হওয়ার কারণে তিনি কিছুদিন অভিনয় জীবন থেকে বিরতি নিয়েছিলেন বলে পূজার পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে। 

ভারত-বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পুরস্কারঃ সেরার তালিকায় সৃজিত-জিৎ

মহারাষ্ট্রের পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, রবিবার মধ্যরাত থেকে প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয় পূজার। সেই সময় তাঁকে গোরেগাঁও-এ একটি প্রাথমিক চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসাকেন্দ্রেই পূজা একটি সন্তানের জন্ম দেন। কিন্তু প্রসবের পর থেকে পূজার অবস্থা ও সদ্যোজাত শিশুর অবস্থা ক্রমেই খারাপ হতে থাকে। কিছুক্ষণের মধ্যেই সদ্যোজাত শিশুর মৃত্যু হয়। গোরেগাঁও প্রাথমিক হাসপাতালের তরফে পূজার পরিবারের সদস্যদের রবিবার সকালেই হিঙ্গোলি সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। হিঙ্গোলি সরকারি হাসপাতালটি মুম্বই থেকে প্রায় ৬০০ কিলোমিটার  দূরে। 

ইতিহাস বিকৃতির চেষ্টা, সৃজিতের গুমনামী নিয়ে সরব নেতাজির নাতনি

মহারাষ্ট্র পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে,  হিঙ্গোলি সরকারি হাসপাতালটি গোরেগাঁও প্রাথমিক চিকিৎসাকেন্দ্র থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। পূজার শারীরিক অবনতি দেখে তাঁর পরিবারের লোকেরা ক্রমেই ভীত হয়ে পড়েন। তাঁরা পাগলের মতো একটা অ্যাম্বুল্যান্সের খোঁজ করতে থাকেন। কিন্তু তাঁরা অ্যাম্বুল্যান্সের জন্য বেশ কয়েকজায় খোঁজ করেন। অবশেষে একটা অ্যাম্বুল্যান্সের সন্ধান পাওয়া গেলে পূজাকে নিয়ে তাঁর পরিবারের সদস্যরা হিঙ্গোলি সরকারি হাসপাতালের দিকে যাত্রা করেন। কিন্তু রাস্তাতেই অভিনেত্রীর মৃত্যু হয়।