বছরের শুরুতেই শোকের ছায়া বিনোদন জগতে। অভিশপ্ত ২০২০ শেষ হতে না হতেই নতুন বছরের শুরুতেই বড়সড় সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী আশা চৌধুরী। গত সোমবারই শুটিং শেষে বাড়ি ফেরার সময় ঢাকার টেকনিক্যাল মোড়ে ট্রাকের ধাক্কায় মৃত্যু হয় বাঙালি অভিনেত্রীর। ইতিমধ্যেই এই খবর প্রকাশ্যে আসা মাত্রই শোরগোল পড়ে গিয়েছে সোশ্যাল  মিডিয়ায়। অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বিনোদন জগতে। অভিনেত্রী  হওয়ার স্বপ্ন অধরাই রয়ে গেল আশার।

অভিনেত্রী আশার মৃত্যুর খবর পেয়ে ভেঙে পড়েছে আশার পরিবার। কোনওভাবেই এই অস্বাভাবিক মৃত্যু মেনে নিতে রাজি নয় অভিনেত্রীর পরিবার। এবং সেই কারণেই মঙ্গলবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে আশার পরিবার।  যে বাইকে চড়ে আশা ফিরছিলেন সেই চালক শামীম আহমেদ সহ আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগের ভিত্তিতেই শামীম আহমেদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এবং তাকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যমকে তদন্তকারী অফিসার জানিয়েছেন, শামীম অনেকে আগে থেকেই আশার পরিচিত ছিল। এবং আশার মৃত্যুর দিন শামীমই মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন। ইতিমধ্যেই অভিযুক্ততে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে আশার পরিবারেরও এই মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ দানা বেধেছে। মিলছে না হিসেব। পরিবার সূত্রে খবর, ৪ জানুয়ারী রাত ১১টায় আশা তার মাকে জানিয়েছিলেন তিনি বনানীতে আছেন। এবং ১৫-২০ মিনিটের মধ্যেই বাড়ি ফিরে আসবেন। কিন্তু তার ৫ মিনিট পরেই আশার বাবা তাকে আবারও ফোন করে। তারপর প্রায় ৩ ঘন্টা পর রাত ২ টো নাগাদ আশার মৃত্যু সংবাদ জানায় শামীম আহমেদ। এই ঘটনার পরই যেন সন্দেহ আরও জোরালো হচ্ছে। এই তিন ঘন্টার মধ্যে কী কী ঘটনা ঘটেছে তার সঠিক কোন উত্তর এখনও দিতে পারছে না আশার বন্ধু শামীম।