নিক জোনাসের সঙ্গে এনগেজমেন্ট সারার জন্য 'ভারত' ছবি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া। ছবিতে অভিনয় করবেন বলেও কিছু না বলেই বেরিয়ে যান তিনি। আর এই আচরণেই চটে যান সলমন খান। এক সময়ে একসঙ্গে বিভিন্ন ছবিতে কাজ করলেও, এখন সলমন ও প্রিয়ঙ্কার আদায় কাঁচকলায়। ভাইয়ের ছবি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার খেসারতও তাই দিতে হচ্ছে পিগি চপসকে। 

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সলমনের কথাতেই সঞ্জয় লীলা ভনসালির একটি ছবি থেকে বাদ পড়তে হল প্রিয়ঙ্কাকে। জানা গিয়েছে, সঞ্জয় লীলা ভনসালি বলা হয়েছিল, ছবিতে সলমন ও প্রিয়ঙ্কার মধ্যে যে কোনও একজনই অভিনয় করতে পারবেন। আর সেখান থেকে সলমনকেই বেছে নিয়েছেন ভনসালি। অগত্য়া বাদ পড়তে হয়েছে প্রিয়ঙ্কাকে। 

কফি উইথ করণ-এ এসে প্রিয়ঙ্কা জানিয়েছিলেন, সঞ্জয় লীলা ভনসালির একটি ছবিতে কাজ করতে চলেছেন তিনি। কিন্তু সল্লু ভাইয়ের কথায় তা আর হচ্ছে না। তাই সঞ্জয় লীলা ভনসালির ছবিতে অভিনয় করতে আরও বেশ কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে প্রিয়ঙ্কাকে।   

সূত্রের খবর অনুযায়ী, সলমন নাকি আর কোনও দিনই প্রিয়ঙ্কার সঙ্গে অভিনয় করতে ইচ্ছুক নন। যদিও এক সংবাদমাধ্যমকে সম্প্রতি তিনি বলেন, "আমি অবশ্যই ওর সঙ্গে ছবিতে অভিনয় করব। যদি ও আমাকে ভাল কোনও  চরিত্রে অভিনয় করার সুযোগ দিতে পারে, আমি কেন করব না! কিন্তু ছবির গল্পটাকে তো আমার ভাল লাগতে হবে।" 

তবে ভারত ছবি থেকে প্রিয়ঙ্কা বেরিয়ে যাওয়ায় খুব একটা অসুবিধা হয়নি সলমনের। কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, সলমন প্রথম থেকেই চাইছিলেন, ছবিতে ক্যাটরিনা কাইফ অভিনয় করুক। এমনকী, আলি আব্বাস জাফারকে সলমন রাজি করিয়েছিলেন ক্যাটরিনাকে ছবিতে নেওয়ার জন্য। এ প্রসঙ্গে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে সলমন বলেন, "প্রথমে প্রিয়ঙ্কা এই ছবিটা করার জন্য আগ্রহী ছিলেন। আলি আর আমি ভেবেছিলাম এ ছবি ক্যাটরিনার উপযুক্ত। কিন্তু কিছুদিন আগেই ক্যাটরিনা ও আমি একসঙ্গে টাইগার জিন্দা হ্যায়-তে অভিনয় করেছি। আর আলি বলেছিল, আমাদের একদম হিন্দুস্থানি একজন নায়িকা চাই। তো আমিই তখন বলেছিলাম, তোমার বন্ধু, অথচ তার উপর তোমার বিশ্বাস নেই। ক্যাটরিনা কেন পারবে না! ও গত ২০ বছর ধরে এখানেই তো রয়েছে। ও রাজনীতি-র মতো ছবি করেছে ভুলে গিয়েছ।" 

প্রসঙ্গত, ভারত বক্স অফিসে ভাল ফল করেছে। এমনকী ক্যাটরিনা কাইফও তাঁর আগের ছবিগুলি থেকে ভাল অভিনয় করেছেন বলে শোনা যাচ্ছে।