কাল রাত থেকেই শুরু হয়েছে বুন্দেশলিগার নতুন মরশুম। প্রথম দিন একটিই খেলা ছিল। মুখোমুখি হয়েছিল বায়ার্ন মিউনিখ এবং শালকে। গত মরশুমে ত্রিমুকুট জিতেছিল বায়ার্ন মিউনিখ। সকলেরই কৌতূহল ছিল এই মরশুমের শুরুতে সেই পরিচিত বাভারিয়ান নেকড়েদের দেখা যাবে কিনা। আর প্রথম ম্যাচেই শালকে কে ৮-০ গোলে উড়িয়ে গোটা ইউরোপকে বার্তা দিল বায়ার্ন মিউনিখ। তাদের সামনে চলতি মরশুমে ৬ টি ট্রফি জেতার সুযোগ রয়েছে। আর তাদের কালকে রাতের পারফরম্যান্সের পর প্রতিটি প্রতিযোগিতাতেই তাদেরকে চ্যালেঞ্জ জানাতে কেউ প্রস্তুত কিনা তা নিয়ে রীতিমতো সন্দেহ দেখা দিয়েছে। 

যদিও অনেকেই বলতে পারেন যে ডেভিড ওয়াগনারের শালকে বায়ার্নের সামনে কোনও চ্যালেঞ্জ ছোড়ার ক্ষমতা রাখে না। কিন্তু তাই বলে ৮ গোল মারার ঘটনা একদমই স্বাভাবিক নয়। একমাত্র কিংসলে কোম্যান বাদে বায়ার্নের সকলকেই কাল ভয়ংকর দেখিয়েছে। বায়ার্নের হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা লেরয় সানে একটি গোল এবং একটি অ্যাসিস্ট করেন। তা বাদে হ্যাটট্রিক করেন সার্জ গ্যানাবরি। একটি করে গোল রবার্ট লেয়নডস্কি, টমাস মুলার, লিওন গরেত্জকা এবং জামাল মুঈসালা। 

অনেকে ভেবেছিল যে মাঝমাঠে থিয়াগো আলকান্তরার না থাকা হয়তো খানিকটা সমস্যায় ফেলবে তাদের। কিন্তু হ্যান্সি ফ্লিক বুঝিয়ে দিলেন যে ব্যাক্তিগত দক্ষতা নন, টিম ওয়ার্কে বিশ্বাসী। আর সেই মন্ত্রেই এত ভয়ংকর বায়ার্ন। চলতি মরশুমে বুন্দেশলিগা, জার্মান কাপ, ডি এফ বি পোকবল, এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ছাড়াও, ক্লাব বিশ্বকাপ এবং ইউয়েফা সুপার কাপের জন্য লড়বে বায়ার্ন। খুব আশ্চর্য হয়তো কেউই হবেন না যদি ছটি ট্রফিই মিউনিখে যায়।