২০১৯-২০ মরশুমের লিগের শেষ এল-ক্লাসিকোর জন্য স্কোয়াড ঘোষণা করলো রিয়াল মাদ্রিদ। দলে জায়গা পেয়েছেন মারিয়ানো দিয়াজ। আশ্চর্যজনক ভাবে দলে জায়গা হয়নি লুকা জভিচের। এই মুহুর্তে দলের প্রধান স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা খুব একটা ভালো ফর্মে নেই। তাই সকলে মনে করেছিল যে জভিচের জায়গা প্রায় পাকা। তার বদলে জিদানের মারিয়ানো কে সুযোগ দেওয়াতে কপালে ভাঁজ ফেলেছে অনেকে। দলে জায়গা পাননি হামেস রদ্রিগেজ কিংবা ব্রাজিলিয়ান বিস্ময় বালক রদ্রিগো। চোটের জন্য এবছর ঢাক ঢোল পিটিয়ে দলে আসা ইডেন হ্যাজার্ড-কেও দলে পাচ্ছে না মাদ্রিদ। আগের এল-ক্লাসিকো-তেও চোটের জন্য মাঠে নামতে পারেনি হ্যাজার্ড। 

এখনও এল-ক্লাসিকোর জন্য নিজেদের স্কোয়াড ঘোষণা করেনি বার্সা। সম্প্রতি লেগানেস থেকে মার্টিন ব্রেথওয়েট কে সই করিয়েছে বার্সা। তবে তার এই ক্লাসিকো তে খেলার সম্ভাবনা কম। তারকা স্ট্রাইকার লুইজ সুয়ারেজের চোটের কারণে গ্রিজমান কে মাঝখানে খেলিয়ে মেসি এবং তরুণ ফুটবলার আনসু ফাটি কে দুটি উইং-এ ব্যবহার করতে পারে বার্সা। বার্সার নব নিযুক্ত কোচ কিউয়ে সাটিয়েন জানিয়েছেন তাদের চেয়েও ক্লাসিকো রিয়ালের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সিজনের খুব বেশি সময় আর বাকি নেই, এই সময় ক্লাসিকো তে জয় লা লিগা খেতাবের দিকে অনেকটাই এগিয়ে দেবে বার্সাকে। সেটা রিয়াল জানে বলেই ম্যাচ জেতার তাগিদ রিয়ালের অনেক বেশি থাকবে বলে বার্সা ম্যানেজার মনে করছেন। 

শেষ পাঁচ টি ম্যাচের মধ্যে মাত্র একটিতে জয় পেয়েছে জিদানের ছেলেরা। শেষ লিগের ম্যাচে লেভান্তের কাছে ১ গোলে হারতে হয়েছে তাদের। তারপর ম্যান সিটির কাছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে হেরে আরো চাপে রিয়াল মাদ্রিদ। শেষ ক্লাসিকোতে ভালো খেলেও জয় পায়নি মাদ্রিদ। এবার নিজেদের ঘরের মাঠে যদি হারতে হয় তবে তাদের লিগ জয়ের দৌড় বড়সর প্রশ্নচিহ্নের মুখে পড়ে যাবে। তাই এই মুহুর্তে খানিকটা দিশেহারা দেখাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ কে। 

অপরদিকে মরশুমের মোক্ষম সময়ে ফর্মে ফিরেছে বার্সেলোনা। শেষ লিগের ম্যাচে তারা এইবর-কে হারিয়েছে ৫-০ গোলে। চার গোল করেছিলেন মেসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ইতালিতে নাপোলির বিরুদ্ধে জয় না এলেও দাপট ছিল বার্সারই। তাই ক্লাসিকো তে সামান্য হলেও এগিয়ে থাকবে বার্সা। এখন দেখার রবিবার রাতে জয় কোন পক্ষের দিকে আসে।