পর পর দু' ম্যাচে ড্র করার পরে পাহাড়ে গিয়ে আই লিগে প্রথম জয় পেল ইস্টবেঙ্গল। ইম্ফলে নেরোকা এফসি-কে ৪-১ গোলে চূর্ণ করে তিন পয়েন্ট ঘরে তুললেন কোলাডো- হুয়ান মেরারা। এই জয়ের ফলে তিন ম্যাচে পাঁচ পয়েন্ট পেয়ে অনেকটাই স্বস্তিতে লাল হলুদ শিবির। জোড়া গোল করে ম্যাচের সেরা হাইমে স্যান্টোস কোলাডো। 

নেরোকার বিরুদ্ধে এ দিন শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন কোলাডো, পিন্টুরা। সেই চাপেরই সুফল পায় লাল হলুদ শিবির। ২১ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি পায় ইস্টবেঙ্গল। গোল করে দলকে এগিয়ে দেন কোলাডো। 

লাল হলুদের শিবিরের উৎসব অবশ্য বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ৩১ মিনিটেই নেরোকাকে সমতায় ফেরান বউবকর দিয়ারা। এর মিনিট দু' য়েকের মধ্যেই নেরোকা বক্সের বাইরে ফ্রি কিক পায় ইস্টবেঙ্গল। আর সেই সুযোগেই ফের একবার নিজের জাত চেনালেন হুয়ান মেরা। যত দিন যাচ্ছে ততই লাল হলুদ সমর্থকদের ভরসার নাম হয়ে উঠছেন মেরা। দুরন্ত ফ্রি কিকে ইস্টবেঙ্গলকে এগিয়ে দেন এই স্প্যানিশ ফুটবলার। নেরোকা গোলরক্ষককে দাঁড় করিয়ে রেখে তাঁর দুরন্ত ফ্রি কিক জালে জড়িয়ে যায়। 

প্রথমার্ধে খেলার ফল ছিল ২-১। দ্বিতীয়ার্ধে মরিয়া হয়ে ঝাঁপায় নেরোকা। কিন্তু খেলার একান্ন মিনিটে ফের পেনাল্টি থেকে ইস্টবেঙ্গলকে এগিয়ে দেন কোলাডো। এর পরই অনেকটা হতদ্যম হয়ে পড়ে পাহাড়ের দলটি। খেলার ৬৪ মিনিটে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন স্প্যানিশ স্ট্রাইকার এস্পাদা। পিন্টু মাহাতোর ক্রস থেকে হেডে দলকে এগিয়ে দেন তিনি। 

এই জয়ের ফলে লিগ টেবিলে তিন নম্বরে উঠে এল আলহান্দ্রো মেনেন্দেসের দল। তাদের উপরে রয়েছে গোকুলম এবং চার্চিল ব্রাদার্স। প্রথম দুই ম্যাচে পয়েন্ট নষ্টের পরে বেশ চাপে পড়ে গিয়েছিলেন লাল হলুদ কোচ। এই জয়ের ফলে অনেকটাই স্বস্তিতে লাল হলুদ শিবির। তবে এ দিনের ম্যাচে বড় ব্যবধানে জয় পেলেও লাল হলুদ রক্ষণে বেশ কিছু ফাঁকফোকর চোখে পড়েছে। রক্ষণের সেই ভুলভ্রান্তিগুলি নিশ্চয়ই অভিজ্ঞ আলেহান্দ্রোর নজর এড়ায়নি।