দলের স্প্যানিশ স্ট্রাইকার মার্কোসের উপরে ভরসা করতে পারছেন না সদস্য়, সমর্থকরা। গোল খরা মেটাতে ভাল একজন ভারতীয় স্ট্রাইকার চেয়েছিলেন ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেজান্দ্রো মেনেন্দেস। শেষ পর্যন্ত লোনে বেঙ্গালুরু এফসি থেকে এডমুন্ড লালরিনডিকাকে নিচ্ছে লাল হলুদ। 

গোলের সামনে গিয়ে মার্কোস বার বার হতাশ করায় বাধ্য হয়েই বিকল্পের খোঁজ করতে হচ্ছে ইস্টবেঙ্গলকে। শেষ গোকুলমের বিরুদ্ধে কঠিন ম্যাচের আগে আভাস থাপার সঙ্গে এডমুন্ডকে দলে নিয়ে আপাতত পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টায় টিম ম্যানেজমেন্ট। ২০১৮-১৯ মরশুমে বেঙ্গালুরু এফসি-র আইএসএল জয়ী দলের সদস্য ছিলেন এডমুন্ড। যদিও দলে তিনি নিয়মিত ছিলেন না। এ বছরের আইএসএল- এ দু'টি ম্যাচে সুযোগ পেয়েছেন তিনি। আই লিগের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে এডমুন্ডের গোলেই ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে সমতায় ফিরেছিল বেঙ্গালুরু। 

আক্রমণভাগ নিয়ে সমস্যা কিছুটা মিটলেও বোরহার বিকল্প নিয়ে ধোঁয়াশা থেকেই যাচ্ছে। ক্লাবের তরফে এ দিন জানানো হয়েছে, গুরুতর অসুস্থ ছোট ছেলে মাউরোর অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে বলে খবর দিয়েছেন বোরহা। এখনও অন্তত দশদিন হাসপাতালে থাকতে হবে শিশুটিকে। ছেলের অবস্থা স্থিতিশীল হলেও এখনও কঠিন লড়াই লড়তে হবে বলেই ক্লাবকে জানিয়েছেন বোরহা। শিশুটিকে ইনটেনসিভ কেয়ারে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। বোরহার বিকল্প ইস্টবেঙ্গল নেবে নাকি স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের ফিরে আসার অপেক্ষা করবে দল, তা এখনও স্পষ্ট নয়। 

গোকুলাম ম্যাচের পরেই আগামী ১৯ তারিখ ডার্বিতে মোহনবাগানের সঙ্গে খেলতে হবে আলেজান্দ্রোর ছেলেদের। তার দল গুছিয়ে ফেলাটাই চ্যালেঞ্জ লাল- হলুদের স্প্যানিশ বসের।