অবশেষে প্রতীক্ষার অবসান। শুরু হতে চলেছে স্প্যানিশ লা লিগা। মে মাসের ১৬ তারিখ জার্মানির বুন্দেশ লিগা দিয়ে করোনা বা লকডাউন পরবর্তী সময়ে ফিরেছিল ফুটবল। তারপরই ঘোষণা করা হয় ১১ জুন থেকে স্পেনে গড়াবে ফুটবল। ভারতীয় সময় রাত দেড়টায় করোনা পরবর্তী লা লিগার প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হতে রিয়াল বেটিস ও সেভিলা। এস্তাদিও র‌্যামন সানচেজ স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে দুই দল। একইসঙ্গে স্পেনের ফুটবল ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাতে চলেছে এই দুই ক্লাব। লা লিগার প্রত্যাবর্তনের ম্যাচ ঘিরে ইতিমধ্যেই উন্মাদনা চড়ছে স্পেন জুড়ে। 

আরও পড়ুনঃআইপিএল করতে প্রস্তুত বিসিসিআই,বড় ঘোষণা সৌরভের

বর্তমানে লিগ টেবিলে তৃতীয় স্থানে রয়েছে সেভিলা। ২৭ ম্যাচ ৪৭ পয়েন্ট লেপেতেগুইয়ের দলের। প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে থাকা বার্সা ও রিয়ালের থেকে ১১ ও ৯ পয়েন্টের ব্যবধান হলেও, এখনই লিগের লড়াইয়ে হাল ছাড়তে নারাজ সেভিলা কোচ।  প্রত্যাবর্তনের ম্যাচ হলেও জয় ছাড়া কিছুই ভাবছেন না লেপেতেগুই। রিয়াল বেটিসের বিরুদ্ধে সম্ভাব্য ৪-৩-৩ ছকেই দল নামাতে চলেছে সেভিলা। রক্ষণ ও মাঝমাঠকে শক্তিশালী করেই আক্রমণে যাওয়া লক্ষ্য জেসাস নেভাস, দিয়াগো কার্লোস, জোয়ান জর্ডানদের। অপরদিকে, ২৭ ম্যাচ ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের ১২ নম্বর স্থানে রয়েছে রিয়াল বেটিস। কেতাব জয়ের সম্ভাবনা না থাকলেও,প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে জয় দিয়েই শুরু করতে চাইছে রিয়াল বেটিস কোচ রুবি। এই ম্যাচে সম্ভাব্য ৪-৪-১-১ ছকে দল নামাবেন রুবি। অর্থাৎ রক্ষাণত্বক ফুটবল খেলে কাউন্টার অ্যাটাকে যাওয়াই লক্ষ্য তার। লিগ স্থগিত হওয়ার শেষ ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়ে চমক দিয়েছিল বেটিস। তাই প্রত্যাবর্তনের ম্যাচও বিপক্ষকে অক ইঞ্চি জমি ছাড়তে নারাজ তারা।

আরও পড়ুনঃঝুলে রইল টি-২০ বিশ্বকাপের ভাগ্য,আইসিসির বৈঠকে হল না কোনও সিদ্ধান্ত

আরও পড়ুনঃবল পালিশে থুতুর ব্যবহার বন্ধে বোলাররা রোবটে পরিণত হবে,মন্তব্য আক্রমের

বুন্দেশলিগার মতই লা লিগা শুরুর ক্ষেত্রে একাধিক নিয়াম লাগু করছে লিগ কর্তৃপক্ষ। তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ম্যাচের দিন দু’দলের ফুটবলার, কোচ, ব্রডকাস্টার টিম, সাংবাদিক মিলিয়ে মোট ২৫০ জন স্টেডিয়ামে থাকবে। আর ম্যাচের আগে ফুটবলার ছাড়াও মাঠে যারা থাকবে, প্রতি সদস্যরেই করোনা পরীক্ষা করা হবে। মাঠে কেউ একে অপরের সঙ্গে করমর্দন করতে পারবে ‌না। মাঠে কেউ থুতু ফেলবে না। কেউ সতীর্থকে জড়িয়ে সেলিব্রেট করবে না। ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে বা শেষ হওয়ার পর প্রত্যেক ফুটবলার ও কোচকে মাস্ক ও গ্লাভস পরতে হবে। আবার দু’সেট কিট সঙ্গে রাখতে হবে সবাইকে। হাফ-টাইমের পর ‌‌নতুন‌ কিট পরে ফুটবলারদের মাঠে নামতে হবে। একই দলকে দু’টো টিম বাস করে মাঠে আসতে হবে। ম্যাচ শেষে সাংবাদিক সম্মেলন হবে অনলাইনে। এছাড়াও দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে ম্যাচ হওয়ার কারণে ঘরে বসে দর্শকদের জন্য থাকছে ভার্চুয়াল স্ট্যান্ড। যা করোনা পরবর্তী লা লিগার মূল আকর্ষণ বলে মনে করছেন সকলে।