নেরোকার ঘরের মাটিতে তাদের ৩-০ গোলে হারাল মোহন বাগান।  সহজ জয় পেয়ে ডার্বির পর কুল ডাউন করল সবুজ-মেরুন শিবির। এদিন ম্য়াচে গোল পেলেন নাওরেম, পাপা বাবাকার দিওয়ারা ও তুরসুনভ।  পারফর্মমেন্সের জন্য আগে বার বার সমালোচিত হতে হচ্ছিল বাবাকে। কিন্তু ডার্বি থেকে ফর্মে ফিরছেন তিনি।   ইম্ফলে জয় স্বস্তি দিয়েছে কোচ কিবু ভিকুনাওকাকেও।

ডার্বির ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে, ডার্বির পরের ম্যাচে অনেক ক্ষেত্রেই ভুল করে ফেলে সেরার সেরারা। কিন্তু এদিন সেরকম কোনও অঘটন ঘটেনি।  ম্য়াচের শুরু থেকেই সাবধানী ছিলেন কোচ। ডার্বি জয়ের কথা ভুলে মন দিতে বলেছিলেন নতুন প্রতিপক্ষের দিকে। দাপুটে ফুটবল খেলে সেটা করে দেখাল বাগানের প্লেয়াররা। মোহনবাগানের জন্য নেরোকা অ্যাওয়ে ম্যাচ হলেও দলের দুই ফুটবলার নাওরেম এবং ধনচন্দ্র সিংয়ের জন্য নেরোকা ম্যাচটা হোম ম্যাচের মতোই ছিল।

 এদিন প্রথমার্ধের ২৭ মিনিটে নাওরেমের গোলেই এগিয়ে যায় বাগান। বিরতির পর ৫৩ মিনিটের মাথায় নাওরেমের ক্রস থেকেই গোল করেন বাবা। ডার্বি থেকে যিনি ফর্মে ফিরেছেন। তাঁর খেলা দেখে এবার বেশ আশ্বস্ত বাগান সমর্থকরাও। নেরোকার কফিনে শেষ পেরেকটি পোঁতেন আরেক নয়া বিদেশি তুরসুনভ। ইনজুরি টাইমে গোল করেন তিনি। ৯ ম্যাচ খেলে ২০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই থাকল মোহনবাগান। তাদের পরবর্তী ম্যাচ আগামী ৩১ জানুয়ারি চেন্নাই সিটির বিরুদ্ধে। এই খেলা ধরে রাখতে পারলে লিগ জয়ের সম্ভাবনা প্রবল এবার। যদিও হাল ছেড়ে দেবে না ইস্টবেঙ্গল। ডার্বি থেকে শিক্ষা নিয়ে তারাও এখন সাবধানী।