বিতর্ক যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না বর্তমান বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচের। করোনা আবহে একটি প্রতিযোগিতা আয়োজন করে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন। আর এবার ম্যাচে পিছিয়ে পড়ায় রাগের মাথায় মহিলা লাইন জাজ বা বিচারককে বল দিয়ে অনিচ্ছাকৃত আঘাত করে বসলেন তিনি। ইউএস ওপেন খেলতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটান তিনি। আর এই ঘটনার শাস্তিস্বরূপ, ইউএস ওপেন থেকে বহিস্কার করা হল জকোভিচকে। যদিও নিজের ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি। পরে এই প্রসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি পোস্টও করেছেন‌ তিনি।

রবিবার পাবলো ক্যারেনো বুস্তার বিরুদ্ধে চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচে এই অনভিপ্রেত কাণ্ড ঘটিয়েছেন জোকার। প্রথম সেটের একাদশতম গেমে নিজের সার্ভিস খুইয়ে ৫–৬ গেমে পিছিয়ে পড়েন জোকার। এরপরই রাগের মাথায় বলটিকে অন্যদিকে মারেন। যা গিয়ে লাগে ওই মহিলা লাইন জাজের গলায়। সঙ্গে সঙ্গে জোকোভিচ এগিয়ে যান তাঁর দিকে। এর পরে টুর্নামেন্ট সুপারভাইজারের সঙ্গে ঘটনাটি নিয়ে বেশ কিছুক্ষণ আলোচনা করেন সার্বিয়ার তারকার। ইচ্ছাকৃতভাবে এই কাজ যে জকোভিচ করেননি, সেটা সবাই বুঝতে পারলেও  যুক্তরাষ্ট্র ওপেনের নিয়ম মেনে তাকে প্রতিযোগিতা থেকে বহিষ্কার করা হচ্ছে। এর ফলে ২০০৪ সালের পরে এই প্রথম কোনও গ্র্যান্ড স্ল্যামে সেমিফাইনালে থাকছে না রজার ফেডেরার , রাফায়েল নাদাল বা নোভাক জোকোভিচের মধ্যে কেউ। 

এই নিয়ে টেনিস জগতে তৃতীয় খেলোয়াড় হিসেবে কোনও গ্র‌্যান্ড স্লাম থেকে বহিষ্কৃত হলেন জকোভিচ। এদিকে, পরে নিজের ভুল বুঝতে পেরে ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্ট করে ক্ষমাও চান জোকার। লেখেন, ‘‌‘‌পুরো ঘটনায় আমি অত্যন্ত দুঃখিত। আমি ওই মহিলার খোঁজ নিয়েছি এবং জানতে পেরেছি, সৌভাগ্যবশত তিনি এখন সুস্থ। তাঁকে এরকম আঘাত দেওয়ায় আমি অত্যন্ত দুঃখিত। এটা একেবারেই অনিচ্ছাকৃত ভুল ছিল।’‌’