ফ্রেঞ্চ লিগে ফেরার পর থেকে একটানা ছন্দহীন পিএসজি। আগস্টের শেষ দিক থেকে শুরু হয়েছিল লিগ ওয়ান। এখনও অবধি তিন রাউন্ড খেলা হয়েছে লিগে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল অবধি পৌঁছনোয় বেশ কয়েকদিন বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল তাদের। তারা মাঠে ফিরেছে ১১ ই সেপ্টেম্বর। বাকি দলগুলি ৩ টি ম্যাচ খেলে ফেলায় তিন দিনের ব্যাবধানে দুটি ম্যাচ খেলতে হয় পিএসজিকে। কিন্তু ওই দুটি ম্যাচেই হারতে হয় তাদের। প্রথম ম্যাচে লেন্সের ঘরের মাঠে ১-০ ফলে হারে পিএসজি। সেই ম্যাচে ছিলেন না নেইমার সহ বেশ কিছু তারকা ফুটবলার। তারপর কাল রাতে নেইমার প্রথম একাদশে ফেরা সত্ত্বেও ঘরের মাঠে ০-১ ফলে হেরে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। 

ম্যাচ আগাগোড়াই উত্তপ্ত ছিল। বারংবার বাকযুদ্ধে এমনকি কয়েকবার হাতাহাতিতেও জড়ায় ফুটবলাররা। তার মধ্যেই মার্সেইয়ের ফ্রেঞ্চ ফুটবলার ফ্লোরিয়েন থাউভিনের গোলে ৩১ মিনিট নাগাদ এগিয়ে যায় মার্সেই। তারপর আর গোল শোধ করতে পারেনি পিএসজি। ম্যাচে ১২ বার হলুদ কার্ড এবং ৫ জনকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। তার মধ্যে ছিলেন নেইমারও। স্প্যানিশ ফুটবলার আলভারোর মাথায় চাঁটি মারায় ম্যাচের শেষ লগ্নে লাল কার্ড দেখতে হয় তাকে। নেইমারের সঙ্গে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন পিএসজির কুরজাওয়া ও পারাদেস। 

নিজের লাল কার্ড প্রসঙ্গে নেইমার মাঠ ছাড়ার সময় ক্যামেরার উদ্দেশ্যে বলে যান যে তাকে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্যের মুখোমুখি হতে হয়েছিল। সেইজন্যই তিনি হাত চালিয়েছেন। তার কথা অনুযায়ী তাকে মাঠে খেলা চলার সময় বাঁদর বলে সম্বোধন করেন আলভারো গঞ্জালেজে। যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা এই অস্বীকার করে গঞ্জালেজ জানিয়েছেন নেইমারের উচিত খেলার ফলাফল, তা জিত হোক বা হার, সেটাকে একজন খেলোয়াড়ের মতো নেওয়া।