এই পুজোয় ধ্বংস হয় সমস্ত বিপদ, রইল ২০২০ সালের সিদ্ধিদাতা গণেশ চতুর্থীর নির্ঘন্ট

First Published 15, Aug 2020, 8:48 AM

প্রতি বছর মা 'উমা'-র আগমণের জানান দেয় গণেশ চতুর্থীর পুজো। প্রতিটি বছর দেশ জুড়ে মহা ধুমধামের সঙ্গে পালিত হয় পার্বতী নন্দন গণেশের পুজো। হিন্দু পুরাণ মতে, ভক্তদের মনবাঞ্ছা পূরণ করতেই শিব-পার্বতী পুত্র মর্তে অবর্তীণ হয়েছিলেন। শুধুমাত্র দেশেই নয় দেশের বাইরেও এই উৎসব ততটাই জনপ্রিয়। নেপালে এই উৎসবের নাম চথা। গণেশ চতুর্থীর এই উৎসব বিভিন্ন নামে পরিচিত যেমন, বিনায়ক চতুর্থী, বিনায়ক চবিথি ইত্যাদি।

<p>এই বছর করোনা মহামারির কারণে প্রতি বছরের মত মহা সমারোহে এই পুজো হবে কি না তা নিয়ে ধন্দ রয়েছে। হিন্দু পঞ্জিকা মতে ভাদ্র মাসের শুক্লা চতুর্থীতে এই পুজো হয়ে থাকে।&nbsp;</p>

এই বছর করোনা মহামারির কারণে প্রতি বছরের মত মহা সমারোহে এই পুজো হবে কি না তা নিয়ে ধন্দ রয়েছে। হিন্দু পঞ্জিকা মতে ভাদ্র মাসের শুক্লা চতুর্থীতে এই পুজো হয়ে থাকে। 

<p>দুর্গা পুজোর মতোই দশদিন ধরে হয়ে থাকে এই পুজো। মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, কলকাতা, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ সহ আরও বিভিন্ন রাজ্যে এই ধুমধামের সঙ্গে এই পুজো হয়ে থাকে।&nbsp;</p>

দুর্গা পুজোর মতোই দশদিন ধরে হয়ে থাকে এই পুজো। মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, কলকাতা, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ সহ আরও বিভিন্ন রাজ্যে এই ধুমধামের সঙ্গে এই পুজো হয়ে থাকে। 

<p>এই বছর গণেশ চতুর্থী ২১ অগাষ্ট শুক্রবার পালিত হবে। শুক্রবার সকাল ১১ টা বেজে ২ মিনিট থেকে শুরু হবে চতুর্থী তিথি।&nbsp;</p>

এই বছর গণেশ চতুর্থী ২১ অগাষ্ট শুক্রবার পালিত হবে। শুক্রবার সকাল ১১ টা বেজে ২ মিনিট থেকে শুরু হবে চতুর্থী তিথি। 

<p>শেষ হবে পরদিন অর্থাৎ ২২ অগাষ্ট শনিবার সন্ধে ৭ টা বেজে ৫৭ মিনিট পর্যন্ত।&nbsp;</p>

শেষ হবে পরদিন অর্থাৎ ২২ অগাষ্ট শনিবার সন্ধে ৭ টা বেজে ৫৭ মিনিট পর্যন্ত। 

<p>সমস্ত দেবতার মধ্যে গণেশকে প্রথম উপাসক হিসাবে বিবেচনা করা হয়।&nbsp;</p>

সমস্ত দেবতার মধ্যে গণেশকে প্রথম উপাসক হিসাবে বিবেচনা করা হয়। 

<p>গণেশ চতুর্থীতে লোকেরা গণেশকে তাদের বাড়িতে নিয়ে আসে, তারা গণেশ চতুর্থীর একাদশতম দিনে আড়ম্বরপূর্ণভাবে নিমগ্ন হয় এবং পরের বছর প্রথম দিকে আগমনের জন্য প্রার্থনা করে।&nbsp;</p>

গণেশ চতুর্থীতে লোকেরা গণেশকে তাদের বাড়িতে নিয়ে আসে, তারা গণেশ চতুর্থীর একাদশতম দিনে আড়ম্বরপূর্ণভাবে নিমগ্ন হয় এবং পরের বছর প্রথম দিকে আগমনের জন্য প্রার্থনা করে। 

<p>পৌরাণিক বিশ্বাস অনুসারে, বিঘ্নহরত শ্রী গণেশ &nbsp;ভাদ্রপদ শুক্লা চতুর্থীর দিন জন্মগ্রহণ করেছিলেন, তাই এই দিন গণেশ চতুর্থী বা বিনায়ক চতুর্থী পালন করা হয়।&nbsp;</p>

পৌরাণিক বিশ্বাস অনুসারে, বিঘ্নহরত শ্রী গণেশ  ভাদ্রপদ শুক্লা চতুর্থীর দিন জন্মগ্রহণ করেছিলেন, তাই এই দিন গণেশ চতুর্থী বা বিনায়ক চতুর্থী পালন করা হয়। 

<p>গণেশ জন্মনোৎসবের দিন গণপতির বিশেষ উপাসনা করা হয়, যাতে তারা কোনও ব্যক্তির জীবনের সমস্ত বিপদ ধ্বংস করে এবং তার প্রতিটি ইচ্ছা পূরণ করতে পারে।</p>

গণেশ জন্মনোৎসবের দিন গণপতির বিশেষ উপাসনা করা হয়, যাতে তারা কোনও ব্যক্তির জীবনের সমস্ত বিপদ ধ্বংস করে এবং তার প্রতিটি ইচ্ছা পূরণ করতে পারে।

loader