সুশান্তের জন্য নিজের কেরিয়ার নষ্ট করতেও রাজি ছিলেন অঙ্কিতা, গোপন তথ্য ফাঁস করলেন বন্ধু

First Published 30, Jun 2020, 2:50 PM

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ২ সপ্তাহ কেটে গেলেও কোনভাবেই যেন মেনে নিতে পারছেন না গোটা বিশ্ব। পরিবার থেকে বন্ধু বান্ধব সকলেই শোকাহত। সুশান্তের মৃত্যুর খবরে উত্তাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া। যত সময় এগোচ্ছে তার মৃত্যু নিয়ে  জট ক্রমশ গাঢ় হচ্ছে। অঙ্কিতার সঙ্গে সুশান্তের প্রেম থেকে বিবাহ সবটাই যেন আরও একবার প্রকাশ্যে উঠে এসেছে।  এমনকী সুশান্তের বাবা এই সম্পর্কে খুশি ছিলেন। সম্প্রতি সুশান্তের ঘনিষ্ঠ বন্ধু সন্দীপ জানিয়েছেন, শুধু প্রেমিকাই নয়, সুশান্তের মায়ের পরেই তার খুব কাছের ছিলেন অঙ্কিতা। 
 

<p><br />
পবিত্র রিস্তা সিরিয়াল দিয়েই সুশান্ত- অঙ্কিতার সম্পর্কের শুরু। অভিনেতার মৃত্যুর পরই  তার প্রেম, সম্পর্ক নিয়ে নানা ভিডিও, ছবি আরও একবার প্রকাশ্যে এসেছে। ফের শিরোনামে উঠে এসেছে অঙ্কিতা।</p>


পবিত্র রিস্তা সিরিয়াল দিয়েই সুশান্ত- অঙ্কিতার সম্পর্কের শুরু। অভিনেতার মৃত্যুর পরই  তার প্রেম, সম্পর্ক নিয়ে নানা ভিডিও, ছবি আরও একবার প্রকাশ্যে এসেছে। ফের শিরোনামে উঠে এসেছে অঙ্কিতা।

<p><br />
অঙ্কিতার সঙ্গে সুশান্তের বন্ধুত্ব থেকে প্রেম  সবটাই বাড়ির সকলে জানতেন। এমনকী সুশান্তের বাবা এই সম্পর্কে খুশি ছিলেন। তিনি জানিয়েছেন, অঙ্কিতা সুশান্তের পাটনার বাড়িতেও এসেছিলেন। অঙ্কিতার  সঙ্গেই ২০১৬-এর শেষের দিকে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।</p>


অঙ্কিতার সঙ্গে সুশান্তের বন্ধুত্ব থেকে প্রেম  সবটাই বাড়ির সকলে জানতেন। এমনকী সুশান্তের বাবা এই সম্পর্কে খুশি ছিলেন। তিনি জানিয়েছেন, অঙ্কিতা সুশান্তের পাটনার বাড়িতেও এসেছিলেন। অঙ্কিতার  সঙ্গেই ২০১৬-এর শেষের দিকে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।

<p>অঙ্কিতা এবং সুশান্তের ভাল বন্ধু ছিলেন সন্দীপ। তিনি জানিয়েছেন, অঙ্কিতা শুধু সুশান্তের  ভাল বন্ধুই ছিলেন না। সুশান্তের মায়ের পরেই তার স্থান ছিল।</p>

অঙ্কিতা এবং সুশান্তের ভাল বন্ধু ছিলেন সন্দীপ। তিনি জানিয়েছেন, অঙ্কিতা শুধু সুশান্তের  ভাল বন্ধুই ছিলেন না। সুশান্তের মায়ের পরেই তার স্থান ছিল।

<p>অঙ্কিতাই একমাত্র ছিল যে কিনা সুশান্তকে খুশি রাখতে পারত। সম্পর্ক বিচ্ছেদের পরও প্রতি শুক্রবার তার ছবির সাফল্যের জন্য প্রার্থনা করত বলে জানিয়েছেন সন্দীপ।</p>

অঙ্কিতাই একমাত্র ছিল যে কিনা সুশান্তকে খুশি রাখতে পারত। সম্পর্ক বিচ্ছেদের পরও প্রতি শুক্রবার তার ছবির সাফল্যের জন্য প্রার্থনা করত বলে জানিয়েছেন সন্দীপ।

<p><br />
সন্দীপ জানিয়েছেন, সুশান্তের মৃত্যুর পর অঙ্কিতাকে নিয়ে সবথেকে বেশি  চিন্তিত হয়ে পড়েছিলাম। সুশান্তের মৃত্যুর পর একাধিকবার ফোনও করেছিলাম অঙ্কিতাকে, কিন্তু ও  সেদিন আমার ফোন ধরেনি। </p>


সন্দীপ জানিয়েছেন, সুশান্তের মৃত্যুর পর অঙ্কিতাকে নিয়ে সবথেকে বেশি  চিন্তিত হয়ে পড়েছিলাম। সুশান্তের মৃত্যুর পর একাধিকবার ফোনও করেছিলাম অঙ্কিতাকে, কিন্তু ও  সেদিন আমার ফোন ধরেনি। 

<p>বর্তমানে গভীর শোকের মধ্যে রয়েছেন অঙ্কিতা। আমি ফোন করে অঙ্কিতার  সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেছি। ও আমার কথা শুনেই জোরে জোরে কাঁদতে শুরু করেছে বলে জানিয়েছে সন্দীপ।</p>

বর্তমানে গভীর শোকের মধ্যে রয়েছেন অঙ্কিতা। আমি ফোন করে অঙ্কিতার  সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেছি। ও আমার কথা শুনেই জোরে জোরে কাঁদতে শুরু করেছে বলে জানিয়েছে সন্দীপ।

<p>অঙ্কিতা খুবই আবেগপ্রবণ মেয়ে। সুশান্তের জন্য নিজের কেরিয়ারও ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন অঙ্কিতা।  </p>

অঙ্কিতা খুবই আবেগপ্রবণ মেয়ে। সুশান্তের জন্য নিজের কেরিয়ারও ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন অঙ্কিতা।  

<p><br />
১০ বছর ধরে সুশান্ত-অঙ্কিতাকে চেনেন সন্দীপ। দুজনের সঙ্গেই গাঢ় বন্ধুত্ব রয়েছে তার। তিনি আরও জানিয়েছেন, সুশান্তের পোস্টমর্টেম রিপোর্ট পাওয়ার পরই আরও বেশি কান্নায় ভেঙে পড়েছিল অঙ্কিতা।</p>


১০ বছর ধরে সুশান্ত-অঙ্কিতাকে চেনেন সন্দীপ। দুজনের সঙ্গেই গাঢ় বন্ধুত্ব রয়েছে তার। তিনি আরও জানিয়েছেন, সুশান্তের পোস্টমর্টেম রিপোর্ট পাওয়ার পরই আরও বেশি কান্নায় ভেঙে পড়েছিল অঙ্কিতা।

<p>সুশান্ত ও অঙ্কিতার বিবাহ প্রসঙ্গে  সন্দীপ জানিয়েছেন, দুজনের মধ্যেই গভীর সম্পর্ক ছিল, কিন্তু কোনওদিনই বিয়ের আমন্ত্রণ পায়নি। তবে তারা বিয়ে করতে চলেছেন এটা জানতাম।</p>

সুশান্ত ও অঙ্কিতার বিবাহ প্রসঙ্গে  সন্দীপ জানিয়েছেন, দুজনের মধ্যেই গভীর সম্পর্ক ছিল, কিন্তু কোনওদিনই বিয়ের আমন্ত্রণ পায়নি। তবে তারা বিয়ে করতে চলেছেন এটা জানতাম।

<p><br />
সুশান্তের মৃত্যুর পরও তার বান্দ্রার ফ্ল্যাটে বিধ্বস্ত অবস্থায় দেখা গেছে অঙ্কিতা লোখান্ডকে। কোনওভাবেই প্রাক্তন প্রেমিকের মৃত্যুশোক মেনে নিতে পারছেন না অঙ্কিতা।</p>


সুশান্তের মৃত্যুর পরও তার বান্দ্রার ফ্ল্যাটে বিধ্বস্ত অবস্থায় দেখা গেছে অঙ্কিতা লোখান্ডকে। কোনওভাবেই প্রাক্তন প্রেমিকের মৃত্যুশোক মেনে নিতে পারছেন না অঙ্কিতা।

loader