'আমার কাছে মানসিক অবসাদ বিলাসিতা', সলমনের মন্তব্যে মেজাজ হারিয়েছিলেন দীপিকা

First Published 29, Jun 2020, 11:04 AM

মানসিক অবসাদ বেশিরভাগ স্টারের জীবনেই কখনও না কখনও উঁকি মেরেছে। মানসিক অবসাদের কারণে কেউ আবার বেছে নিয়েছে জীবন যুদ্ধে হেরে যাওয়ার পথও, কঠিন এই লড়াইকে জয় করে সকলের মনে অনুপ্রেরণা যুগিয়েছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন। তবে অবসাদ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন সলমন খান। তা কানে আসা মাত্রই রাগে ফেটে পড়লেন দীপিকা। 

<p style="text-align: justify;">দীপিকা পাড়ুকোন মানসিক অবসাদে থাকার কথা সকসলের সামনে একাধিকবার তুলে ধরেছেন। ২০১৫ সালের বেশির ভাগ সাক্ষাৎকারেই তিনি ভেসেছিলেন চোখের জলে। </p>

দীপিকা পাড়ুকোন মানসিক অবসাদে থাকার কথা সকসলের সামনে একাধিকবার তুলে ধরেছেন। ২০১৫ সালের বেশির ভাগ সাক্ষাৎকারেই তিনি ভেসেছিলেন চোখের জলে। 

<p>সম্পর্কের টানাপোড়েন থেকে সৃষ্টি হওয়া সমস্যা তাঁকে তিলে তিলে গ্রাস করছিল। তাই তিনি জানেন মানসিক অবসাদের যন্ত্রণাটা ঠিক কতটা কঠিন। </p>

সম্পর্কের টানাপোড়েন থেকে সৃষ্টি হওয়া সমস্যা তাঁকে তিলে তিলে গ্রাস করছিল। তাই তিনি জানেন মানসিক অবসাদের যন্ত্রণাটা ঠিক কতটা কঠিন। 

<p style="text-align: justify;">এমনই সময় এক সাক্ষাৎযকারে সলমন খান মানসিক অবসাদ নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন। তিনি জানান, মানসিক অবসাদ, দুঃখ, কষ্ঠ বিলাসিতা, যা করার অবকাশ আমার নেই।</p>

এমনই সময় এক সাক্ষাৎযকারে সলমন খান মানসিক অবসাদ নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন। তিনি জানান, মানসিক অবসাদ, দুঃখ, কষ্ঠ বিলাসিতা, যা করার অবকাশ আমার নেই।

<p>এই কথা কান আসার পরই মেজাজ হারান দীপিকা পাড়ুকোন। নাম না করে সলমনকে আক্রমণ করে তিনি জানিয়েছিলেন, সম্প্রতি একজনের মুখে শুনেছি এমন মন্তব্য। </p>

এই কথা কান আসার পরই মেজাজ হারান দীপিকা পাড়ুকোন। নাম না করে সলমনকে আক্রমণ করে তিনি জানিয়েছিলেন, সম্প্রতি একজনের মুখে শুনেছি এমন মন্তব্য। 

<p>যা শুনে মনে হয়, ইচ্ছে থাকলেই মানসিক অবসাদে ভোগা যায়, অনেকে মনে করেন দুঃখ ও মানসিক অবসাদ একই বিষয়। </p>

যা শুনে মনে হয়, ইচ্ছে থাকলেই মানসিক অবসাদে ভোগা যায়, অনেকে মনে করেন দুঃখ ও মানসিক অবসাদ একই বিষয়। 

<p>দীপিকা নিজের জীবন যুদ্ধের কথা তুলে ধরে জানিয়েছিলেন, সেই কঠিন সময় তিনি পাশে পেয়েছিলেন তাঁর পরিবার, ডাক্তার, বন্ধুদের। তাই হয়তো ফিরে আসতে পেড়েছেন স্বাভাবিক জীবনে।</p>

দীপিকা নিজের জীবন যুদ্ধের কথা তুলে ধরে জানিয়েছিলেন, সেই কঠিন সময় তিনি পাশে পেয়েছিলেন তাঁর পরিবার, ডাক্তার, বন্ধুদের। তাই হয়তো ফিরে আসতে পেড়েছেন স্বাভাবিক জীবনে।

<p>ইচ্ছে করলেই মানসিক অবসাদে ভোগা যায়, আর না করলেই সেখান থেকে বেড়িয়ে আসা যায়, এই সকল মন্তব্য ভিত্তিহীন।</p>

ইচ্ছে করলেই মানসিক অবসাদে ভোগা যায়, আর না করলেই সেখান থেকে বেড়িয়ে আসা যায়, এই সকল মন্তব্য ভিত্তিহীন।

<p>মানসিক অবসাদে ভুগে প্রতিটা মুহূর্ত যে কতটা যুদ্ধ করে কাটাতে হয়, তা আমি নিজের জীবন দিয়ে দেখেছি। বেঁচে থাকাটাই তখন হয়ে দাঁড়ায় চ্যালেঞ্জের।  </p>

মানসিক অবসাদে ভুগে প্রতিটা মুহূর্ত যে কতটা যুদ্ধ করে কাটাতে হয়, তা আমি নিজের জীবন দিয়ে দেখেছি। বেঁচে থাকাটাই তখন হয়ে দাঁড়ায় চ্যালেঞ্জের।  

loader