করোনার ধাক্কায় বেসামাল এই ভারতীয় শিল্পপতীরা, কে কত পরিমাণ অর্থ খোয়ালেন

First Published 8, Apr 2020, 10:49 AM

সারা বিশ্ব জুড়ে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। সারা দেশে একটানা ২১ দিনের লকডাউনের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। প্রত্যেকেই কোভিড-১৯-এর জেরে গৃহবন্দি। আর এই মারণ ভাইরাসের জেরে বড় ধাক্কা  পড়েছে ব্যবসা-বাণিজ্যের উপর। মারণ ভাইরাস মহামারি আকার নেওয়ার পর থেকেই তার প্রভাব পড়েছে বড় বড় ধনকুবেরদের উপর। করোনার প্রভাব শুধু সাধারণ মানুষের উপরই নয়, বরং বিশ্বের তাবড় তাবড় শিল্পপতীরাও রয়েছেন সেই তালিকায়।  সম্প্রতি একটি সমীক্ষায়  বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তিদের তালিকা প্রকাশ করেছে। সেখানেই উঠে এসেছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। একনজরে দেখে নিন করোনার ত্রাসে কারা কতটা পরিমাণ অর্থ খোয়ালেন।

করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়ল মুকেশ আম্বানির কোষাগারে। মাত্র ২ মাসেই তার সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে ২৮ শতাংশ।  যার ফলে ধনীদের তালিকায়  অনেকটাই নীচে নেমে এসেছেন মুকেশ আম্বানি। সমীক্ষার তালিকায় নিজের জায়গা থেকে ৮ ধাপ নীচে নেমে ১৭ তম স্থানে রয়েছেন রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের কর্ণধার মুকেশ আম্বানি। করোনার জেরে প্রায় ১.৫ লক্ষ কোটি টাকার সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে মুকেশ আম্বানীর। এর ফলে শেয়ার বাজারে ব্যাপক হারে পড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়ল মুকেশ আম্বানির কোষাগারে। মাত্র ২ মাসেই তার সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে ২৮ শতাংশ। যার ফলে ধনীদের তালিকায় অনেকটাই নীচে নেমে এসেছেন মুকেশ আম্বানি। সমীক্ষার তালিকায় নিজের জায়গা থেকে ৮ ধাপ নীচে নেমে ১৭ তম স্থানে রয়েছেন রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের কর্ণধার মুকেশ আম্বানি। করোনার জেরে প্রায় ১.৫ লক্ষ কোটি টাকার সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে মুকেশ আম্বানীর। এর ফলে শেয়ার বাজারে ব্যাপক হারে পড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

করোনার প্রভাবে আরও শিল্পপতীর কোষাগারেও টান পড়েছে। তিনি  হলেন  আদানি গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা গৌতম আদানির। করোনার জেরে মোট সম্পদের ৩৭ শতাংশ কমেছে।

করোনার প্রভাবে আরও শিল্পপতীর কোষাগারেও টান পড়েছে। তিনি হলেন আদানি গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা গৌতম আদানির। করোনার জেরে মোট সম্পদের ৩৭ শতাংশ কমেছে।

এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা  শিব নাদারেরও ২৬ শতাংশ সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে।

এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা শিব নাদারেরও ২৬ শতাংশ সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে।

ওয়োর প্রতিষ্ঠাতা রীতেশ আগরওয়াল বিশ্বের সবথেকে কনিষ্ঠতম ধনকুবের। তিনি তার বার্ষিক বেতনের ১০০ শতাংশ অগ্রাহ্য করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।  তিনিও  আর  ১০০ জন ধনীর তালিকায় নেই। যদিও খুব শীঘ্রই তিনি বিশ্বের দ্বিতীয় কনিষ্ঠতম ধনকুবের হয়ে উঠতে পারেন ।

ওয়োর প্রতিষ্ঠাতা রীতেশ আগরওয়াল বিশ্বের সবথেকে কনিষ্ঠতম ধনকুবের। তিনি তার বার্ষিক বেতনের ১০০ শতাংশ অগ্রাহ্য করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনিও আর ১০০ জন ধনীর তালিকায় নেই। যদিও খুব শীঘ্রই তিনি বিশ্বের দ্বিতীয় কনিষ্ঠতম ধনকুবের হয়ে উঠতে পারেন ।

করোনার জেরে বড় ধাক্কা খেয়েছেন  কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের চোয়ারম্যান উদয় কোটাক। মোট ২৮ শতাংশ সম্পত্তিক পরিমাণ কমেছে তার।এরা কেউই আর বিশ্বের ১০০ জন ধনীর তালিকায় নেই। একমাত্র এই তালিকায় রয়ে গেলেন ভারতীয়দের মধ্যে মুকেশ আম্বানি।

করোনার জেরে বড় ধাক্কা খেয়েছেন কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের চোয়ারম্যান উদয় কোটাক। মোট ২৮ শতাংশ সম্পত্তিক পরিমাণ কমেছে তার।এরা কেউই আর বিশ্বের ১০০ জন ধনীর তালিকায় নেই। একমাত্র এই তালিকায় রয়ে গেলেন ভারতীয়দের মধ্যে মুকেশ আম্বানি।

তবে শুধু ভারতীয়রাই নয় ব্যাপক হারে সম্পত্তি কমেছে আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ব্যবসায়ী বিল গেটসের। তিনিও রয়েছেন তিন নম্বর তালিকায়।

তবে শুধু ভারতীয়রাই নয় ব্যাপক হারে সম্পত্তি কমেছে আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ব্যবসায়ী বিল গেটসের। তিনিও রয়েছেন তিন নম্বর তালিকায়।

মেক্সিকান ম্যাগনেট ব্যবসায়ী , কার্লস স্লিম ২৪ শতাংশ সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে।

মেক্সিকান ম্যাগনেট ব্যবসায়ী , কার্লস স্লিম ২৪ শতাংশ সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে।

জারা গ্রুপের মালিক আমানসিও ওতের্গার ২১ শতাংশ সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে।

জারা গ্রুপের মালিক আমানসিও ওতের্গার ২১ শতাংশ সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে।

অনলাইন সংস্থা আমাজন এর সিইও জেফ বেজোস এই দুই মাসে  ৯  বিলিয়ন ডলার হারিয়েছে, তবে  এখনও পর্যন্ত তিনি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি। যার মোট সম্পদ ১৩১ বিলিয়ন ডলার।

অনলাইন সংস্থা আমাজন এর সিইও জেফ বেজোস এই দুই মাসে ৯ বিলিয়ন ডলার হারিয়েছে, তবে এখনও পর্যন্ত তিনি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি। যার মোট সম্পদ ১৩১ বিলিয়ন ডলার।

loader