17

প্রথম ম্যাচের ফল-
সিডনিতে প্রথম একদিনের ম্যাচে ৬৬ রানে হারতে হয়েছে ভারতীয় দলকে। প্রথমে ব্যাট করে ৩৭৫ রানে করেছিল টিম ইন্ডিয়া। জোড়া সেঞ্চুরি করেন অ্যারন ফিঞ্চ ও স্টিভ স্মিথ। জবাবে রান তাড়া করতে নেমে শিখর ধওয়ান ও হার্দিক পান্ডিয়া লড়াই কিছুটা লড়াই করলেও ভারতীয় দলের ইনিংস শেষ হয় ৩০৮ রানে।

Subscribe to get breaking news alerts

27

ব্যাটিং ব্যর্থতা-
অস্ট্রেলিয়া দলে যেখানে প্রথম তিন জন ব্যাটসম্যানের মধ্যে দুজন সেঞ্চুরি করেছেন ও একজন অর্ধশতরান করেছেন, সেখানে ভারতীয় দলে একমাত্র শিখর ধওয়ান ছাড়া রান পাননি মায়াঙ্কা আগরওয়াল, বিরাট কোহলি, কেএল রাহুলরা। ফলে প্রথম সারির ব্যাটসম্যানদের রানে ফেরা খুব দরকার ভারতের।

37

বোলিং ব্যর্থতা-
ভারতীয় দলের বোলিং বিভাগকেও ছন্দে পাওয়া যায়নি প্রথম দলকে। মরা, শামিদের অনায়াসে খেলছিলেন ফিঞ্চরা। পিচ থেকে কোনও সাহায্য পাচ্ছিলেন না ভারতীয় পেসাররা। লেগস্পিনার যুজভেন্দ্র চাহাল ও পেসার নবদীপ সাইনি আবার ১০ ওভারে দিয়েছেন যথাক্রমে ৮৯ ও ৮৩ রান। এই অবস্থায় পেসার টি নটরাজন ও চায়নাম্যান কুলদীপ যাদবের দলে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। 
 

47

ষষ্ঠ বোলারের অভাব-
জাদেজাকে নিয়ে ৫ জন বোলার ছাড়া বিরাট কোহলির হাতে আর কোনও উপায় ছিল না। সেই কারণে ভুগতে হয়েছে ভারতীয় দলকে। হার্দিক পান্ডিয়া  পুরোপুরি ফিট না থাকায় বল করছেন তিনি। তার ফলে ষষ্ঠ বোলারের অভাব কীভাবে কাটিয়ে ওঠে ভারতীয় দল এখন সেটাই দেখার।
 

57

অলরাউন্ডারের অভাব-
হার্দিক বল না করায়, দলে একমাত্র অলরাউন্ডারের ভূমিকায় রয়েছেন রবীন্দ্র জাদেজা। ফলে অলরাউন্ডারের অভাব বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিচ্ছে ভারতীয় দলের কাছে। 

67

ফিল্ডিংয়ে ব্যর্থতা-
প্রথম ম্যাচে ভারতীয় দল জঘন্য ফিল্ডিংয়ের কারণে সমালোচিত হয়েছেন। শিখর ধওয়ান, মায়াঙ্ক আগরওয়াল থেকে শুরু করে বিরাট কোহলি, যুজবেন্দ্র চাহল সকলেই ক্যাচ বা ফিল্ডিং মিস করেছেন। ফলে দ্বিতীয় ম্যাচে ফিল্ডিং মেরামতি বড় চ্যালেঞ্জ টিম ইন্ডিয়ার কাছে।
 

77

সঠিক দল নির্বাচন-
প্রথম ম্যাচে ভারতীয় দলের প্রথম একাদশ নির্বাচন নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন। দলে যুজবেন্দ্র চাহল ও নবদীপ সাইনির বদলে শার্দুল ঠাকুর ও কুলদীপ যাদবকে সুযোগ দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেছেন অনেকেই। ফলে দ্বিতীয় ম্যাচে দলে ফিরতে পারেন এই দুই তারকা।