কোন ফুটবলার জিততে পারে ২০২০ সালের ব্যালন ডি-অর, জেনে নিন সমীকরণ

First Published 12, Jul 2020, 4:31 PM

প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর ফুটবল ফিরেছে স্বমহিমায়। প্রতিটি ম্যাচের সাথে বদলে যাচ্ছে লিগের চেহারা। সেই সঙ্গে বদলে যাচ্ছে "ব্যালন ডি-অর" এর দৌড়ে থাকা ফুটবলারদের ক্রমতালিকা। এক একটি গোল, এক একটি গোলে সহায়তা বদলে দিচ্ছে সমীকরণ। জেনে নিন কোন ফুটবলারেরা এই বছরের সেরার খেতাবের দৌড়ে রয়েছেন বাকিদের চেয়ে এগিয়ে। 
 

<p><strong>১. রবার্ট লেয়নডস্কি- </strong><br />
এই মরশুমের সেরা গোল স্কোরার। একথা এক বাক্যে স্বীকার করবেন সকলেই। বুন্দেশলিগায় ৩১ ম্যাচে ৩৪ গোল করে গোল্ডেন বুট একপ্রকার নিশ্চিত করে ফেলেছেন। তার পারফরম্যান্সের দৌলতেই পিছিয়ে পড়েও লিগ এবং ঘরোয়া কাপ জিতেছে বায়ার্ন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও গোলের বন্যা বইয়ে দিয়েছেন। চলতি মরশুমে দেশ এবং ক্লাব মিলিয়ে ৫১ টি গোল করেছেন তিনি। তার সবথেকে কাছে থাকা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো তার থেকে এখনও ৮ গোলে পিছিয়ে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পর তার পরিসংখ্যান আরও উন্নত হবে এমনটাই মনে করছেন অনেকে। আর বায়ার্ন ইউসিএল জিতলে "ব্যালন দি-অর"-এর সবচেয়ে যোগ্য দাবিদার হবেন তিনিই।</p>

১. রবার্ট লেয়নডস্কি- 
এই মরশুমের সেরা গোল স্কোরার। একথা এক বাক্যে স্বীকার করবেন সকলেই। বুন্দেশলিগায় ৩১ ম্যাচে ৩৪ গোল করে গোল্ডেন বুট একপ্রকার নিশ্চিত করে ফেলেছেন। তার পারফরম্যান্সের দৌলতেই পিছিয়ে পড়েও লিগ এবং ঘরোয়া কাপ জিতেছে বায়ার্ন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও গোলের বন্যা বইয়ে দিয়েছেন। চলতি মরশুমে দেশ এবং ক্লাব মিলিয়ে ৫১ টি গোল করেছেন তিনি। তার সবথেকে কাছে থাকা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো তার থেকে এখনও ৮ গোলে পিছিয়ে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পর তার পরিসংখ্যান আরও উন্নত হবে এমনটাই মনে করছেন অনেকে। আর বায়ার্ন ইউসিএল জিতলে "ব্যালন দি-অর"-এর সবচেয়ে যোগ্য দাবিদার হবেন তিনিই।

<p><strong>২. ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো-</strong><br />
৩৫ বছর বয়সে যেখানে অনেক ফুটবলার অবসর নেওয়ার কথা ভাবেন, সেখানে এখনও সমান সপ্রতিভ সি আর সেভেন। কোপা ইতালিয়া ফাইনালে তার গোলেই উঠেছিল জুভেন্তাস। সেখানে হারলেও লিগে মোটামুটি ভালো ছন্দে আছে জুভে। চলতি বছরের শুরু থেকে লিগের প্রায় প্রত্যেকটি ম্যাচে গোল করেছেন রোনাল্ডো। এই বছরে এখনও অবধি সবথেকে বেশি গোলের মালিক তিনি। আর চলতি মরশুমে সিঁরি আ-তে ২৮ ম্যাচে ২৮ গোল করেছেন তিনি। সাথে ৫ টি গোলের ক্ষেত্রেও সহযোগিতা করেছেন। সিঁরি আ-র দৌড়ে বেশ খানিকটা এগিয়ে রয়েছে জুভে। তার সাথে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে যদি ভালো কিছু করতে পারেন তবে ষষ্ঠ ব্যালন দি-অর জিততেও পারেন তিনি। </p>

২. ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো-
৩৫ বছর বয়সে যেখানে অনেক ফুটবলার অবসর নেওয়ার কথা ভাবেন, সেখানে এখনও সমান সপ্রতিভ সি আর সেভেন। কোপা ইতালিয়া ফাইনালে তার গোলেই উঠেছিল জুভেন্তাস। সেখানে হারলেও লিগে মোটামুটি ভালো ছন্দে আছে জুভে। চলতি বছরের শুরু থেকে লিগের প্রায় প্রত্যেকটি ম্যাচে গোল করেছেন রোনাল্ডো। এই বছরে এখনও অবধি সবথেকে বেশি গোলের মালিক তিনি। আর চলতি মরশুমে সিঁরি আ-তে ২৮ ম্যাচে ২৮ গোল করেছেন তিনি। সাথে ৫ টি গোলের ক্ষেত্রেও সহযোগিতা করেছেন। সিঁরি আ-র দৌড়ে বেশ খানিকটা এগিয়ে রয়েছে জুভে। তার সাথে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে যদি ভালো কিছু করতে পারেন তবে ষষ্ঠ ব্যালন দি-অর জিততেও পারেন তিনি। 

<p><br />
<strong>৩. লিওনেল মেসি-</strong><br />
তাকে ছাড়া এই তালিকা সবসময়ই অসম্পূর্ণ। অন্যান্য বছরের মতো এই মুরশুমেও ভালো ফর্মে রয়েছেন লিও মেসি। লিগে যদিও তার দল বেশ খানিকটা পিছিয়ে রয়েছে আর কোপা দেল রে থেকেও ছিটকে গিয়েছে বার্সেলোনা। তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দৌড়ে এখনও রয়েছে বার্সা। সেখানে ভালো কিছু করতে পারলে ফের ভাগ্যে শিকে ছিঁড়তে পারে আর্জেন্তাইন ফরোয়ার্ডের। চলতি লিগে তিনি ২২ টি গোলের সাথে সাথে ২০ টি গোলে সহায়তাও করেছেন, যে কৃতিত্ব একবিংশ শতাব্দীতে থিয়ের অঁরি ছাড়া কারোর নেই। <br />
 </p>


৩. লিওনেল মেসি-
তাকে ছাড়া এই তালিকা সবসময়ই অসম্পূর্ণ। অন্যান্য বছরের মতো এই মুরশুমেও ভালো ফর্মে রয়েছেন লিও মেসি। লিগে যদিও তার দল বেশ খানিকটা পিছিয়ে রয়েছে আর কোপা দেল রে থেকেও ছিটকে গিয়েছে বার্সেলোনা। তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দৌড়ে এখনও রয়েছে বার্সা। সেখানে ভালো কিছু করতে পারলে ফের ভাগ্যে শিকে ছিঁড়তে পারে আর্জেন্তাইন ফরোয়ার্ডের। চলতি লিগে তিনি ২২ টি গোলের সাথে সাথে ২০ টি গোলে সহায়তাও করেছেন, যে কৃতিত্ব একবিংশ শতাব্দীতে থিয়ের অঁরি ছাড়া কারোর নেই। 
 

<p><strong>৪. কেভিন দি ব্রুইন-</strong><br />
ম্যান সিটি হয়তো এই মরশুমে লিগে ভালো ফর্মে ছিল না কিন্তু তার মধ্যেও দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছেন যায় বেলজিয়ান মিডফিল্ডার। এই মুহুর্তে বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার বলে মানা হয় তাকে। তিনি এই বছরের লিগে ১৮ টি গোলে সহায়তার পাশাপাশি নিজে ১১ টি গোল করেছেন। ম্যান সিটির সামনে এখনও এফ এ কাপ ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতার সুযোগ রয়েছে। আর সেই দুটি কাপ জিততে পেপ গুয়ার্দিওয়ালার দল নির্ভর করবে কেভিন দি ব্রুইনের ওপর। আর যদি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে পারে ম্যান সিটি তবে "দি ব্রুইনের" হাতে ব্যালন দি-অর না ওঠার কোনও কারণ থাকবে না। <br />
 </p>

৪. কেভিন দি ব্রুইন-
ম্যান সিটি হয়তো এই মরশুমে লিগে ভালো ফর্মে ছিল না কিন্তু তার মধ্যেও দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছেন যায় বেলজিয়ান মিডফিল্ডার। এই মুহুর্তে বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার বলে মানা হয় তাকে। তিনি এই বছরের লিগে ১৮ টি গোলে সহায়তার পাশাপাশি নিজে ১১ টি গোল করেছেন। ম্যান সিটির সামনে এখনও এফ এ কাপ ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতার সুযোগ রয়েছে। আর সেই দুটি কাপ জিততে পেপ গুয়ার্দিওয়ালার দল নির্ভর করবে কেভিন দি ব্রুইনের ওপর। আর যদি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে পারে ম্যান সিটি তবে "দি ব্রুইনের" হাতে ব্যালন দি-অর না ওঠার কোনও কারণ থাকবে না। 
 

<p><strong>৫. টমাস মুলার-</strong><br />
চলতি মরশুমে লিগ এবং ঘরোয়া কাপ প্রতিযোগিতা এর মধ্যেই জিতে নিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও ভালো জায়গায় রয়েছে তারা। কোয়ার্টার ফাইনাল প্রায় নিশ্চিত। আর বায়ার্নের এই সাফল্যের পেছনে উল্লেখযোগ্য অবদান রয়েছে এই জার্মান আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডারের। লিগে ২১ টি গোলে সহায়তা করার পাশাপাশি প্রয়োজনে গোলও করেছেন। তাই এবারের "ব্যালন দি-অর"-এর দৌড়ে ভালো জায়গায় রয়েছেন তিনি। <br />
 </p>

৫. টমাস মুলার-
চলতি মরশুমে লিগ এবং ঘরোয়া কাপ প্রতিযোগিতা এর মধ্যেই জিতে নিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও ভালো জায়গায় রয়েছে তারা। কোয়ার্টার ফাইনাল প্রায় নিশ্চিত। আর বায়ার্নের এই সাফল্যের পেছনে উল্লেখযোগ্য অবদান রয়েছে এই জার্মান আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডারের। লিগে ২১ টি গোলে সহায়তা করার পাশাপাশি প্রয়োজনে গোলও করেছেন। তাই এবারের "ব্যালন দি-অর"-এর দৌড়ে ভালো জায়গায় রয়েছেন তিনি। 
 

<p><strong>৬. ব্রুনো ফার্নান্দেজ- </strong><br />
চলতি মরশুমের প্রথম ভাগে পর্তুগালের স্পোর্টিং লিসবনে খেলছিলেন এই আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার। সেখানে তার দুর্দান্ত ফর্ম দেখে জানুয়ারির ট্রান্সফার উইন্ডোতে তাকে তুলে নেয় ম্যান ইউনাইটেড। তিনি ম্যান ইউতে যোগ দেওয়ার পরে একটাও ম্যাচ হারেনি রেড ডেভিলসরা। প্রায় প্রতি ম্যাচেই গোল করছেন কিংবা করাচ্ছেন। কোনও সন্দেহ নেই এইবছর "ব্যালন দি-অর"-এর তালিকায় তার নাম উপরের দিকেই থাকবে। <br />
 </p>

৬. ব্রুনো ফার্নান্দেজ- 
চলতি মরশুমের প্রথম ভাগে পর্তুগালের স্পোর্টিং লিসবনে খেলছিলেন এই আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার। সেখানে তার দুর্দান্ত ফর্ম দেখে জানুয়ারির ট্রান্সফার উইন্ডোতে তাকে তুলে নেয় ম্যান ইউনাইটেড। তিনি ম্যান ইউতে যোগ দেওয়ার পরে একটাও ম্যাচ হারেনি রেড ডেভিলসরা। প্রায় প্রতি ম্যাচেই গোল করছেন কিংবা করাচ্ছেন। কোনও সন্দেহ নেই এইবছর "ব্যালন দি-অর"-এর তালিকায় তার নাম উপরের দিকেই থাকবে। 
 

loader