রাতে কম ঘুমিয়েও পরদিন থাকুন অ্যক্টিভ, অব্যর্থ টোটকায় কাটিয়ে উঠুন অবসন্নতা

First Published 9, Sep 2020, 2:06 PM

একটি পুরো দিন দৌড়ানোর পরে, প্রতিটি ব্যক্তির স্ট্রেস এবং ক্লান্তি থেকে মুক্তি পেতে ভাল ঘুম চাই। যাতে পরের দিন সকালে সে আবার অ্যাক্টিভ থাকে। তবে আপনি যদি রাতে ভাল ঘুম না হয়, তবে পরদিন সব সময় ঝিঁমুনি, ক্লান্ত এবং অবসন্ন ভাবে কাজ করে। এমন পরিস্থিতিতে আপনি ক্লান্তি অনুভব করতে পারেন। শরীরে ব্যথা বা মাথা ব্যথা করতে পান। তবে যদি রাতে ভাল ঘুম না হয়, তবে সকালে সম্পূর্ণ অ্যাক্টিভ হওয়ার জন্য আপনার কী করা উচিত তা জেনে নিন-

<p><strong>অ্যালার্ম বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে উঠে পড়ুন-</strong></p>

<p>প্রায়শই যারা গভীর রাতে ঘুমোয়, তারা খুব সকালে ঘুম থেকে উঠতে পারে না। যা স্বাস্থ্যের জন্য খুব ক্ষতিকর। বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি আপনি সারাদিন অলস ভাবে কাটান তবে আপনার পক্ষে অ্যাক্টিভ থাকা খুব সমস্যার। তাই সকালে অ্যালার্ম বাজার সঙ্গে সঙ্গেই উঠে পড়ুন। এটি আপনাকে সারা দিন এ্যাক্টিভ রাখতে সাহায্য করবে এবং অলসতা সরিয়ে দেয়।</p>

অ্যালার্ম বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে উঠে পড়ুন-

প্রায়শই যারা গভীর রাতে ঘুমোয়, তারা খুব সকালে ঘুম থেকে উঠতে পারে না। যা স্বাস্থ্যের জন্য খুব ক্ষতিকর। বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি আপনি সারাদিন অলস ভাবে কাটান তবে আপনার পক্ষে অ্যাক্টিভ থাকা খুব সমস্যার। তাই সকালে অ্যালার্ম বাজার সঙ্গে সঙ্গেই উঠে পড়ুন। এটি আপনাকে সারা দিন এ্যাক্টিভ রাখতে সাহায্য করবে এবং অলসতা সরিয়ে দেয়।

<p><strong>উষ্ণ পানীয় পান করুন-</strong></p>

<p>প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে এক গ্লাস উষ্ণ গরম জল পান করুন। তার পরে ব্রেকফাস্ট করুন। তবে সকালেই খালি পেটে চা বা কফি পান করবেন না। এটি শরীরের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতি করে। ব্রেকফাস্টের পর কফি বা চা পান করতে পারেন। এটি আপনাকে সারা দিন অ্যাক্টিভ এবং তরতাজা থাকতে সাহায্য করবে।&nbsp;</p>

উষ্ণ পানীয় পান করুন-

প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে এক গ্লাস উষ্ণ গরম জল পান করুন। তার পরে ব্রেকফাস্ট করুন। তবে সকালেই খালি পেটে চা বা কফি পান করবেন না। এটি শরীরের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতি করে। ব্রেকফাস্টের পর কফি বা চা পান করতে পারেন। এটি আপনাকে সারা দিন অ্যাক্টিভ এবং তরতাজা থাকতে সাহায্য করবে। 

<p><strong>ব্যয়াম বা যোগা-</strong></p>

<p>আপনি প্রতিদিন একেবারে নিজের কিছুটা সময় ব্যয় করুন। এটি আপনার শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সাহায্য করবে। এছাড়াও, আপনি সারা দিন সুস্থ এবং অ্যাক্টিভ থাকুন। আপনি যখন প্রতিদিন হাঁটা বা ব্যয়াম করেন, তখন আপনার নিজেকেও ফিট মনে হবে। পাশাপাশি ব্যায়াম বা যোগা করে আপনি অনেক রোগ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন।</p>

ব্যয়াম বা যোগা-

আপনি প্রতিদিন একেবারে নিজের কিছুটা সময় ব্যয় করুন। এটি আপনার শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সাহায্য করবে। এছাড়াও, আপনি সারা দিন সুস্থ এবং অ্যাক্টিভ থাকুন। আপনি যখন প্রতিদিন হাঁটা বা ব্যয়াম করেন, তখন আপনার নিজেকেও ফিট মনে হবে। পাশাপাশি ব্যায়াম বা যোগা করে আপনি অনেক রোগ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন।

<p>স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে, সকালে ঘুম থেকে ওঠার কয়েক ঘন্টা পরে আপনি যদি অবিচ্ছিন্নভাবে কিছু খাবার খেতে থাকেন তবে আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে। রক্তে যখন শর্করার মাত্রা হ্রাস করে তখনই বেশি ক্লান্ত বোধ অনুভূত হয়। যার কারণে আপনার শরীর উষ্ণ বোধ শুরু করে।</p>

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে, সকালে ঘুম থেকে ওঠার কয়েক ঘন্টা পরে আপনি যদি অবিচ্ছিন্নভাবে কিছু খাবার খেতে থাকেন তবে আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে। রক্তে যখন শর্করার মাত্রা হ্রাস করে তখনই বেশি ক্লান্ত বোধ অনুভূত হয়। যার কারণে আপনার শরীর উষ্ণ বোধ শুরু করে।

<p><strong>উচ্চ-প্রোটিন জাতীয় খাদ্য</strong></p>

<p>যখন আপনি উচ্চ-প্রোটিন জাতীয় খাবার খান, এটি সরাসরি আপনার শক্তির স্তরকে প্রভাবিত করে। অতএব, সকালে, আপনার একটি প্রোটিন সমৃদ্ধ ডায়েট খাওয়া উচিত। যা আপনাকে সক্রিয় থাকতে সহায়তা করবে।</p>

উচ্চ-প্রোটিন জাতীয় খাদ্য

যখন আপনি উচ্চ-প্রোটিন জাতীয় খাবার খান, এটি সরাসরি আপনার শক্তির স্তরকে প্রভাবিত করে। অতএব, সকালে, আপনার একটি প্রোটিন সমৃদ্ধ ডায়েট খাওয়া উচিত। যা আপনাকে সক্রিয় থাকতে সহায়তা করবে।

<p><strong>সর্বদা হাইড্রেটেড থাকা</strong></p>

<p>প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে জল খাওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এটি আপনাকে সারা দিন সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যখন পর্যাপ্ত ঘুম না হয় তখন কোষগুলি ড্রাই করে তোলে। এই সময় শরীরের যথেষ্ট জলের প্রয়োজন হয়। তাই যখন আপনার ঘুম সম্পূর্ণ বা ভাল হবে না। তখন পরের দিন সকালে বেশি করে জল খাওয়া উচিত।<br />
&nbsp;</p>

সর্বদা হাইড্রেটেড থাকা

প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে জল খাওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এটি আপনাকে সারা দিন সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যখন পর্যাপ্ত ঘুম না হয় তখন কোষগুলি ড্রাই করে তোলে। এই সময় শরীরের যথেষ্ট জলের প্রয়োজন হয়। তাই যখন আপনার ঘুম সম্পূর্ণ বা ভাল হবে না। তখন পরের দিন সকালে বেশি করে জল খাওয়া উচিত।
 

loader