আপনি প্রতিদিন কতগুলি ডিম খেতে পারেন, জেনে নিন এই বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ

First Published 24, Aug 2020, 2:40 PM

সকালের জল-খাবার হোক বা দুপুরের ভাত অথবা রাতে রুটি। এই সমস্ত সময়ে ডিম সকলের প্রিয়। ডিম খেতে ভালো লাগে না, এমন কথা বোধহয় খুব একটা শোনাও যায় না। ডিম সকলের অন্যতম প্রিয় খাবার। পাশাপাশি ডিম পুষ্টির স্টোর হাউস। প্রতিটি ব্যক্তির শরীরের ওজন অনুযায়ী প্রোটিন খাওয়া দরকার। ডিমের সাদা অংশ এবং কুসুমগুলিতে প্রোটিন থাকে তবে সাদা অংশে এর পরিমাণ বেশি থাকে। 
 

<p>ডিমের সাদা অংশে ফ্যাট কম থাকে। এটিতে প্রায় ৬ গ্রাম-এর মত প্রোটিন এবং ৫৫ মিলিগ্রাম সোডিয়াম রয়েছে। এতে ক্যালোরি কম থাকে। তাই ডায়েটে ডিম অন্তর্ভুক্ত করা ভাল। একই সময়ে, কুসুমে ভিটামিন এ, ফ্যাট এবং কোলেস্টেরল থাকে।&nbsp;</p>

ডিমের সাদা অংশে ফ্যাট কম থাকে। এটিতে প্রায় ৬ গ্রাম-এর মত প্রোটিন এবং ৫৫ মিলিগ্রাম সোডিয়াম রয়েছে। এতে ক্যালোরি কম থাকে। তাই ডায়েটে ডিম অন্তর্ভুক্ত করা ভাল। একই সময়ে, কুসুমে ভিটামিন এ, ফ্যাট এবং কোলেস্টেরল থাকে। 

<p>তাই বেশি পরিমাণে ডিমের কুসুম খেলে দেহে কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে। তবে নিয়ন্ত্রিত উপায়ে ডিম খেলে কোনও সমস্যা হওয়ার কথা নয়।</p>

তাই বেশি পরিমাণে ডিমের কুসুম খেলে দেহে কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে। তবে নিয়ন্ত্রিত উপায়ে ডিম খেলে কোনও সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

<p>ডিমে ভিটামিন এ, বি, ডি, ই এবং সি রয়েছে ডিমে ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং আয়রনও রয়েছে।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

ডিমে ভিটামিন এ, বি, ডি, ই এবং সি রয়েছে ডিমে ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং আয়রনও রয়েছে। 
 

<p>যারা ওজন কমাতে চান তাদের জন্য ডিমও ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে। ডিম শরীরের ক্লান্তি এবং ওজন কমানোর জন্য খুব কার্যকরী একটি খাদ্য।&nbsp;</p>

যারা ওজন কমাতে চান তাদের জন্য ডিমও ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে। ডিম শরীরের ক্লান্তি এবং ওজন কমানোর জন্য খুব কার্যকরী একটি খাদ্য। 

<p><strong>দিনে কতগুলি ডিম খাওয়া যায়-</strong></p>

<p>ডিম একটি খুব পুষ্টিকর খাবার, তবে এর কুসুমে কোলেস্টেরল বেশি থাকে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ডায়াবেটিস এবং উচ্চ কোলেস্টেরলযুক্ত ব্যক্তিদের দিনে একাধিক ডিম খাওয়া উচিত নয়।&nbsp;</p>

দিনে কতগুলি ডিম খাওয়া যায়-

ডিম একটি খুব পুষ্টিকর খাবার, তবে এর কুসুমে কোলেস্টেরল বেশি থাকে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ডায়াবেটিস এবং উচ্চ কোলেস্টেরলযুক্ত ব্যক্তিদের দিনে একাধিক ডিম খাওয়া উচিত নয়। 

<p>কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকলে ডিমের কুসুম এড়িয়ে চলা উচিত। যদি ভুলবশত ডিমের কুসুম খেয়ে থাকেন তবে বেশি মাত্রায় জল খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।&nbsp;</p>

কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকলে ডিমের কুসুম এড়িয়ে চলা উচিত। যদি ভুলবশত ডিমের কুসুম খেয়ে থাকেন তবে বেশি মাত্রায় জল খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। 

<p>ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশন এর মতে, দিনে তিনটের ডিমের বেশি খাওয়া উচিত নয়। কারণ এটি উচ্চ কোলেস্টেরল যুক্ত, যা ভবিষ্যতে হৃদরোগকে প্রভাবিত করতে পারে। তাই ভালোবেসে ডিম খান তবে হিসেব করে।</p>

ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশন এর মতে, দিনে তিনটের ডিমের বেশি খাওয়া উচিত নয়। কারণ এটি উচ্চ কোলেস্টেরল যুক্ত, যা ভবিষ্যতে হৃদরোগকে প্রভাবিত করতে পারে। তাই ভালোবেসে ডিম খান তবে হিসেব করে।

loader